প্রতিবেশী জুনায়েদ হাসান রিমনের মা রওশন আরার সঙ্গে বিরোধ ছিল নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের এক কিশোরের মায়ের। এর জেরে পরিবারের উস্কানি ছিল ১০ বছর বয়সী রিমনকে শায়েস্তা করার। এরই মধ্যে মেলে এক হাজার টাকার লোভনীয় অফার। এতেই পড়ে প্রতিহিংসার আগুনে ঘিয়ের ছিটা। পূর্বপরিকল্পনা বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে শিশুটিকে খুন করতে নিয়ে যায় নির্জন চকে (ধানক্ষেতের উঁচু জায়গা)। সেখানে আরও কয়েকজন মিলে গলা কেটে হত্যা করা হয় রিমনকে।

সোমবার সংবাদ সম্মেলনে এই হত্যাকাণ্ডের লোমহর্ষক বর্ণনা দেয় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। এর আগে রোববার এ ঘটনায় চারজনকে আটক করা হয়।

গত ১৪ এপ্রিল প্রতিবেশী আনোয়ার হোসেন বাবুর ছেলে তানজিনের (৭) সঙ্গে খেলার সময় ঝগড়া হয় রিমনের। সেই ঝগড়া ছড়িয়ে পড়ে বড়দের মধ্যে। এতে রিমনকে হত্যার পরিকল্পনা করে ওই কিশোরের বাবা মানিক মিয়া এবং তানজিনের বাবা আনোয়ার হোসেন বাবু।

পরিকল্পনা অনুযায়ী, ১৬ এপ্রিল বিকেলে রিমনের সঙ্গে খেলতে যায় ওই কিশোর। খেলা শেষে অন্যরা বাড়ি চলে গেলে রিমনকে নির্জন স্থানে নিয়ে যায় সে। সেখানে আগে থেকেই প্রস্তুত ছিল বাবু ও তার ভাই আল-আমিন।