দেশে ইয়াবা উদ্ধারের প্রথম মামলায় দণ্ডিত পলাতক আসামি এমরান হককে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১। বুধবার রাতে রাজধানীর গুলশান এলাকায় এ অভিযান চালানো হয়। তবে শুক্রবার বিষয়টি গণমাধ্যমকে জানায় র‌্যাব।

র‌্যাবের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২০০২ সালের ১৯ ডিসেম্বর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের অভিযানে গুলশানের নিকেতন এলাকা থেকে হেরোইন, ইয়াবা ও নিষিদ্ধ অন্যান্য মাদক উদ্ধার করা হয়। ওই ঘটনায় এমরান হকসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে তদন্তকারী সংস্থা। বিচার কার্যক্রম শেষে বিশেষ দায়রা জজ আদালত চলতি বছরের ৩১ মার্চ রায় ঘোষণা করেন। রায়ে এজাহারভুক্ত শফিকুল ইসলামকে যাবজ্জীবন ও তদন্তে পাওয়া এমরান হক ও সোমনাথ সাহাসহ চারজনকে তিন বছর সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। তাদের মধ্যে শফিকুল ছাড়া অপর দু'জন পলাতক হওয়ায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। এরই পরিপ্রেক্ষিতে আসামিদের গ্রেপ্তারে র‌্যাব গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করে। একপর্যায়ে এমরান হকের অবস্থান সম্পর্কে গোয়েন্দাতথ্য পেয়ে অভিযান চালানো হয়।

আসামিকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে র‌্যাব জানায়, ২০০২ সালে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের অভিযানে গ্রেপ্তার হলেও পরে জামিনে মুক্তি পান এমরান। ২০০৪ সাল থেকে তিনি পলাতক ছিলেন। তিনি ও তার সহযোগীরা মূলত দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার একটি দেশ থেকে লাগেজের মাধ্যমে নেশাজাতীয় ট্যাবলেট ইয়াবা বাংলাদেশে আনা শুরু করেন। তারা গুলশান, বনানী, বনশ্রীসহ রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ইয়াবা বিক্রি করতেন। এমরান ২০১৮ সালে বনানী থানার একটি মাদক মামলায় গ্রেপ্তার হন, যা বিচারাধীন।