রংপুর সদরের পাগলাপীরে মাইক্রোবাসের সঙ্গে সিএনজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে পাঁচজন নিহত হয়েছেন। 

বুধবার সন্ধ্যায় সদর উপজেলার পাগলাপীর সলেয়া বাজার এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। রংপুর সদর কোতোয়ালি থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. আব্দুল মোকাদ্দেম বলেন, হাসপাতালে দুজনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে একজনের নাম পরিচয় পাওয়া গেছে। অন্যজনের নাম পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে। বাকি আহতরা বিভিন্ন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

নিহতরা হলেন- তারাগঞ্জ উপজেলার হাড়িয়ারকুঠি খাড়ুয়াবাধা গ্রামের আমজাদ হোসেন (৫০), ইকরচালীর দোহাজারী ছুটহাজীপুর গ্রামের মাহিন্দ্রাচালক ছেয়াদুল ইসলাম ছোপড়া (৩৭) ও নাজমা বেগম (৩৫)। বাকি দুইজনের নাম-পরিচয় এখনো জানা যায়নি। 

আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছিল। এদের নাজমা বেগম নামে একজনসহ  আরও দুজনের মৃত্যু হয়েছে। নিহতদের মরদেহ তারাগঞ্জ হাইওয়ে থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। 

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বুধবার সন্ধ্যায় রংপুর থেকে একটি মাইক্রোবাস যাত্রী নিয়ে সৈয়দপুরের দিকে রওনা হয়। অপর দিক থেকে একটি সৈয়দপুর থেকে রংপুরগামী সিএনজি সলেয়াশাহ বাজারে আসলে মাইক্রোবাস ও সিএনজি’র মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। 

তারাগঞ্জ হাইওয়ে থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব মোর্শেদ জানান, নিহতদের মধ্যে দুইজনের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে। আহতদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।