রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর মাতুয়াইলে শাহীনা আক্তার (২১) নামে এক তরুণীকে শ্বাসরোধ ও মাথায় আঘাত করে হত্যা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে এ ঘটনা ঘটে। 

পুলিশের ধারণা, তরুণীর কথিত প্রেমিক জাহাঙ্গীর এই হত্যাকাণ্ড ঘটান। তাকে রক্তাক্ত জখম অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তারা দু'জনই একটি পোশাক কারখানার কর্মী।

যাত্রাবাড়ী থানার ওসির দায়িত্বে থাকা পরিদর্শক (তদন্ত) আয়ান মাহমুদ দীপ সমকালকে বলেন, দুজনই বিবাহিত। তাদের মধ্যে পরকীয়া সম্পর্ক ছিল। গতকাল দুপুরের পর তারা মাতুয়াইলের পার ডগাইর এলাকার একটি বাড়ির সাত তলার ফ্ল্যাটে যান। সেখানে কোনো বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে বিরোধের সূত্রপাত হয়। একপর্যায়ে উত্তেজিত হয়ে মেয়েটি তার প্রেমিকের পুরুষাঙ্গ কেটে ফেলেন। তখন যুবকও ক্ষিপ্ত হয়ে মেয়েটির গলা চেপে ধরেন। ধারণা করা হচ্ছে, এর একপর্যায়ে মেয়েটির মাথা দেওয়ালে ঠুকে মারাত্মক আঘাত লাগে। এই আঘাত ও শ্বাসরোধের ফলে তার মৃত্যু হয়।

পুলিশ জানায়, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে মেয়েটির মরদেহ উদ্ধার করে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করা হয়। পরে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ পাঠানো হয় সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ (মিটফোর্ড) মর্গে। 

আহত জাহাঙ্গীরকে প্রথমে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে তাকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছে। যে বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে, সেটি দুজনের কারও পরিচিতজনের বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে তাদের কাউকে পাওয়া যায়নি।

এ ঘটনায় নিহতের স্বামী রুহুল আমিন বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা করেছেন। জাহাঙ্গীরকে সেই মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হবে।