নেত্রকোণার কলমাকান্দায় বৈঠাখালী নদীর পানিতে ডুবে লামিয়া আক্তার নামে আট বছর বয়সী এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। শনিবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার সদর ইউনিয়নের খাসপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। শিশু লামিয়া আক্তার একই ইউনিয়নের পাঁচুড়া গ্রামের মো. আওয়াল হোসেন ও রাব্বানা আক্তার দম্পতির বড় সন্তান। মৃতের বাবা পেশায় একজন লরি চালক ও মা গৃহিনী।

পুলিশ জানায়, শনিবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে পরিবার সদস্যদের অজান্তে নানা বাড়ির সামনে বৈঠাখালী নদীর পানিতে ছোট ভাই আবু বক্করকে সঙ্গে নিয়ে গোসল করার উদ্দেশে যায় লামিয়া। ওই সময় ভাই বক্কর নদীর পাড়ে ছিল। গোসল করার জন্য লামিয়া নদীর পানিতে নামে। তারপর সে গভীরে চলে যায়। সাঁতার কাটতে না জানায় সে পানিতে হাবুডাবু খেতে থাকে। এ সময় তার ভাইয়ের আত্মচিৎকারে ওই গ্রামের নূরুল হক ও হিরুণ মিয়াসহ পরিবারের লোকজন ছুটে আসেন এবং শিশুটিকে দ্রুত উদ্ধার করে কলমাকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে যান। তবে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক নিশাত তাসনিম জানান, শিশুটি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে আনার আগেই মারা গেছে। অতিরিক্ত পানি পেটে প্রবেশ করায় এমনটি হয়েছে।

এ বিষয়ে কলমাকান্দা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) প্রশান্ত কুমার সাহা বলেন, অভিযোগ না থাকায় আইনি প্রক্রিয়া শেষে শিশুর মরদেহ তার বাবার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।