সিলেটে সীমান্তবর্তী কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় ৮০০ টাকার জন্য একজন মুরগি ব্যবসায়ীর লাঠির আঘাতে আরেক মুরগি ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। নিহত হাফিজুর রহমান (৪৫) উপজেলার পাড়ুয়া মাঝপাড়া গ্রামের মৃত আছদ্দর আলীর ছেলে। শনিবার রাত ১০টার দিকে বাড়ির সামনে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে প্রতিবেশী ব্যবসায়ী ফয়জুল বারীর হাতে তিনি নিহত হন। অভিযুক্ত ফয়জুল গ্রামের মিরাছ আলীর ছেলে।

এই ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত পলাতক রয়েছে বলে জানান কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুকান্ত চক্রবর্তী। তিনি বলেন, অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারের জন্য রাত থেকেই পুলিশের অভিযান চলছে। সুরতহালে নিহতের মাথায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ রাতেই ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলা হয়নি।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, নিহত হাফিজুর ও ফয়জুল স্থানীয় ভোলাগঞ্জ বাজারে পাশাপাশি দোকানে মুরগি ব্যবসায়ী। কয়েকদিন আগে ফয়জুল প্রতিবেশী দোকানদার হাফিজুরের কাছ থেকে ৮০০ টাকা ধার নিয়েছিলেন। শনিবার রাতে পাওনা টাকা চাইতে গেলে দু’জনের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে ফয়জুল একটি লাঠি দিয়ে হাফিজুরের মাথায় আঘাত করেন। এতে রক্তাক্ত হাফিজুর অজ্ঞান হয়ে মাটিতে পড়ে যান।

তাৎক্ষণিকভাবে পরিবারের লোকজন হাফিজুরকে উদ্ধার করে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে পুলিশ হাসপাতাল থেকে লাশ উদ্ধার করে।