ময়মনসিংহের তারাকান্দায় আদিবাসী এক বৃদ্ধকে কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিবেশী যুবক। রোববার রাতে যুবকের উপর্যুপরি কোপে প্রাণ দেন বৃদ্ধ।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত ওই যুবককে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে স্থানীয় জনতা। পুলিশ বলছে, মাদকাসক্ত হয়ে বৃদ্ধকে কুপিয়ে হত্যা করেছে ওই যুবক।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার ঢাকুয়া ইউনিয়নের ঢাকুয়া গ্রামের মনোরঞ্জন মন্টু সাংমা (৭০) নিজ বাড়ির বারান্দায় বসে ছিলেন। রাত ৮টার দিকে তার বাড়িতে গিয়ে হামলা চালায় প্রতিবেশী আশুতোষ নাথ চাম্বুগংয়ের ছেলে শিমুল চাম্বুগং (১৯)। কেউ কিছু বুঝে ওঠার আগেই কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে বৃদ্ধকে জখম করে শিমুল। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান মন্টু সাংমা।

স্থানীয় লোকজন শিমুলকে ঘরে আটকে রেখে পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহত বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। একইসঙ্গে অভিযুক্ত শিমুলকেও আটক করে থানায় নেওয়া হয় এবং হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত কুড়ালটি উদ্ধার করা হয়

ঢাকুয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ইকরামুল হক তালুকদার জানান, ছেলেটির সঙ্গে বৃদ্ধের কোনো বিরোধ ছিলো না। কোনো কারণ ছাড়াই হঠাৎ বৃদ্ধকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। অভিযুক্ত যুবককে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

তারাকান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল খায়ের বলেন, অভিযুক্ত শিমুল চাম্বুগং নিয়মিত চোলাই মদ পান করে। রোববার রাতেও মদ্যপ অবস্থায় বৃদ্ধকে হামলা করে। কোনো কারণ ছাড়াই হামলা করা হয়। নিহতের শরীরে একটি কোপের চি‎হ্ন রয়েছে।

তিনি আরও জানান, সোমবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য বৃদ্ধের লাশ মর্গে পাঠানো হবে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে অভিযুক্ত শিমুলকেও সোমবার আদালতে সোপর্দ করা হবে।