বাগেরহাটের রামপালে পোশাকশ্রমিককে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় ৮ জনকে আটক করেছে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। রোববার গভীর রাতে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করে র‌্যাব সদস্যরা। আটকদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরপূর্বক তাদেরকে রামপাল থানায় হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।

আটকরা হলেন-মো. আবুল কালাম আজাদ শুকুর (২৪), মো. আসলাম শেখ(২২), মো. জনি শেখ (১৮), মো. মারুফ বিল্লা(২২), মো. হাসান শেখ (২০), মো. রাসেল শেখ (২২), মো. হোসেন গাজী(১৮), মো. রাজু শেখ(২৪)।  আটকদের সবার বাড়ি রামপাল উপজেলার বিভিন্ন এলাকায়।

র‌্যাব সূত্রে জানা যায়, রোববার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় গার্মেন্টস থেকে বাড়ি ফিরছিলেন ধর্ষণের স্বীকার ওই তরুণী। পথিমধ্যে রামপাল উপজেলার ভাগায় তার বন্ধু হৃদয়ের(২০) সাথে দেখা হয়। বন্ধু হৃদয়ের সাথে চেয়ারম্যানের মোড় হেঁটে যাওয়ার সময় একটি পরিত্যক্ত মাদ্রাসা মাঠে দেয়ালের পাশে গেলে মো. আবুল কালাম আজাদ শুকুর ও মো.আসলাম শেখ সহ ৭-৮ জন হৃদয়কে মারধর করে। এরপর তারা ওই তরুনীকে টেনে হিচড়ে নিয়ে যায়। দেয়ালের আড়ালে নিয়ে অভিযুক্তরা ওই তরুণীকে ধর্ষণ করে ফেলে রেখে চলে যায়। পরে ভুক্তভোগী তরুণী ও তার বন্ধু বিষয়টি মেয়েটির মাকে ফোন করে জানায়। ভিকটিমের মা তাৎক্ষণিক ঘটনাটি র‌্যাব-৬ এ অবহিত করে।

র‌্যাব-৬ খুলনার সহকারি পরিচালক (মিডিয়া) বজলুর রশীদ বলেন, ধর্ষণের স্বীকার তরুণীর মায়ের অভিযোগের ভিত্তিতে রামপালে অভিযান চালিয়ে ৮জনকে আটক করা হয়েছে। আটকদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের পূর্বক রামপাল থানায় হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।