বগুড়ায় আদালতের সাজার ভয়ে ১০ বছর পালিয়ে ছিলেন রেজাউল নামে এক ব্যক্তি। পলাতক থেকেও শেষ রক্ষা হলোনা তার।

প্রতারণার ১০ মামলায় ১৮ বছরের কারাদণ্ড থেকে বাঁচতে মালয়েশিয়া ও নারায়ণগঞ্জে বসবাস করেছিলেন তিনি। রোববার রাতে তাকে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে বগুড়া থানা পুলিশ।

গ্রেপ্তার রেজাউল বগুড়া শহরের বৃন্দাবন পাড়ার প্রয়াত সদর উদ্দিনের ছেলে।

পুলিশ জানায়, গ্যাস ওয়েল্ডিং ওয়ার্কশপ ও কাস্টিং ঢালাই কারখানার ব্যবসা শুরু করেন রেজাউল। ব্যবসাবৃদ্ধির কথা বলে বিভিন্ন ব্যক্তির কাছ থেকে প্রায় কোটি টাকা হাতিয়ে নেন তিনি। এরপর সুযোগ বুঝে ২০১২ সালে বগুড়া থেকে মালয়েশিয়া পালিয়ে যান তিনি। ২০১৪ সালে আবারও দেশে ফিরেন তিনি।

এর মধ্যে ২০১৪ সালে তার বিরুদ্ধে দায়ের করা ১০টি মামলায় মোট ১৮ বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত। এরপর থেকে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে বাড়ি ভাড়া নিয়ে আত্মগোপনে ছিলেন তিনি।

বগুড়া সদর থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) জাকির আল আহসান জানান, গ্রেপ্তার রেজাউলকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।