চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) একটি সড়কের উন্নয়নকাজ অসমাপ্ত রেখে ব্যাংক থেকে নেওয়া ঋণের ৪০ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ব্যাংকের কর্মকর্তাসহ আটজনের বিরুদ্ধে দুটি মামলা করেছে দুদক। আজ মঙ্গলবার দুদকের উপপরিচালক মো. আনেয়ারুল হক চট্টগ্রাম সমন্বিত জেলা কার্যালয় চট্টগ্রাম ১-এ মামলা দুটি করেন।

মামলার আসামিরা হলেন- সড়কের কার্যাদেশ পাওয়া মেসার্স রানা বিল্ডার্স থেকে সাব-কন্ট্রাক্টে কাজ পাওয়া কুমিল্লার মো. জাকির হোসেন, রানা বিল্ডার্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোহাম্মদ আলম, ফেনী সদর এলাকার বাসিন্দা ছালেহ আহাম্মদ, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের (ইউসিবিএল) কুমিল্লা শাখার সাবেক এফভিপি ও ব্যবস্থাপক মো. সারোয়ার আলম, সহকারী ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. আনিসুজ্জামান, এফএভিপি ছাইফুল আলম মজুমদার, ব্যাংকটির খুলশী শাখার সিনিয়র নির্বাহী কর্মকর্তা মকামে মাহমুদুল ইসলাম আরেফিন ও ইউসিবিএল চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কার্যালয়ের সিনিয়র নির্বাহী কর্মকর্তা দেবু বোস।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের অলঙ্কার থেকে নিমতলী বন্দর সংযোগ সড়কের উন্নয়ন প্রকল্পের কার্যাদেশ পায় মেসার্স রানা বিল্ডার্স। প্রতিষ্ঠানের এমডি মোহাম্মদ আলম এ প্রকল্পের কার্যাদেশ পেয়ে চুক্তিপত্রের শর্ত ভঙ্গ করে জাকির হোসেনকে অবৈধভাবে আমমোক্তারের মাধ্যমে কাজ বাস্তবায়নের দায়দায়িত্ব হস্তান্তর করেন। চুক্তি অনুযায়ী কাজটি সম্পাদন না করে অসমাপ্ত অবস্থায় ফেলে রেখে গণভোগান্তি তৈরি এবং সরকারের (সিটি করপোরেশনের) ৪ কোটি ২৪ লাখ ২০ হাজার টাকা আর্থিক ক্ষতির অভিযোগ আনা হয় একটি মামলায়।

২০১৭ সাল থেকে শুরু হওয়া এ উন্নয়ন প্রকল্পের কার্যাদেশ দেখিয়ে রানা বিল্ডার্সের মোহাম্মদ আলম আরেক আসামি জাকির হোসেনকে দিয়ে ইউসিবিএল কুমিল্লা শাখা থেকে ২০ কোটি টাকা ঋণ নিয়ে পরিশোধ না করে পরস্পর যোগসাজশে আত্মসাৎ করেন বলে আরেক মামলায় অভিযোগ করা হয়। একইভাবে মেসার্স জাকির এন্টারপ্রাইজের নামে একই ব্যাংকে ওই শাখায় অন্য আরেকটি হিসাব খুলে আরও ২০ কোটি টাকা ঋণ নিয়ে আসামিরা আত্মসাৎ করেন বলে এজাহারে অভিযোগ আনা হয়।