বাগেরহাটের রামপালে নবজাতক শিশুকে নদীতে ফেলে হত্যার অভিযোগে বাগেরহাটের রামপাল উপজেলার মল্লিকবের গ্রামের শাহাজাহান হাওলাদার ও তার জামাতা আল আমিন শেখকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। 

শুক্রবার দুপুরে নৃশংস ওই ঘটনার পর সেদিন রাতে তাদের গ্রেপ্তার করে ‍পুলিশ। পরে শনিবার তাদের আদালতে তোলা হয়।  

রামপাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সামসুদ্দিন সমকালকে বলেন, শ্বশুরবাড়িতে বসবাসের সুযোগে আল আমিনের সঙ্গে তার চাচাত শ্যালিকার‘শারীরিক সম্পর্ক’ গড়ে ওঠে ৷ একপর্যায়ে ওই কিশোরী গর্ভবতী হয়ে পড়ে ৷ শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে কিশোরীর প্রসব বেদনা ওঠে। 

তখন গোপনে আলামিন, আল আমিনের শ্বশুর শাহাজাহান ও কিশোরীর পরিবারের লোকজন তাকে নিয়ে গ্রাম্য ডাক্তারের কাছে নিয়ে যায়। পথিমধ্যে ভ্যানেই কিশোরী পুত্রসন্তান জন্ম দেন। পরে আল আমিন ও তার শ্বশুর মিলে নবজাতক শিশুটিকে খালের পানিতে চুবিয়ে হত্যা করে ৷ এরপর তার মরদেহটি খালের পাশে পুতে ফেলার সময় স্থানীয়রা বিষয়টি দেখতে পায়।

ওসি সামসুদ্দিন জানান, এ ঘটনায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আল আমিন হত্যা ও অবৈধ সম্পর্কের কথা স্বীকার করেছে। আল আমিন ও তার শ্বশুরকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

ওসি আরও বলেন, কিশোরী এখনও অসুস্থ রয়েছেন। বাড়িতে তার চিকিৎসা চলছে।