ফেসবুকে পরিচয়। পরে গড়ে ওঠে প্রেমের সম্পর্ক। সেই সম্পর্কের টানাপোড়েনে ক্ষিপ্ত হয়ে মেয়ের পরিবারকে জব্দ করতে প্রশাসনের কাছে বাল্যবিয়ের ভুয়া তথ্য দিয়ে নিজেই ফেঁসে গেছেন প্রেমিক।

গত বৃহস্পতিবার বিকেলে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ পৌর এলাকার কাশীপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, প্রেমিক নায়মুর রহমানের (১৯) অভিযোগ পেয়েই তাৎক্ষণিক কনের বাড়িতে হাজির হয় প্রশাসন। কিন্তু সেখানে বিয়ের কোনো আলামত না পাওয়ায় কালীগঞ্জ সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ওই যুবককে ডেকে এনে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।
নায়মুর মহেশপুর উপজেলার যাদবপুর গ্রামের মুক্তার আলীর ছেলে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাবিবুল্লাহ হাবিব জানান, বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টার দিকে নায়মুর রহমান নামে এক যুবক মোবাইল ফোনে তাকে জানান কাশীপুর গ্রামে অষ্টম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীর বাল্যবিয়ের আয়োজন চলছে। এমন খবর পেয়েই তিনি তাৎক্ষণিক পুলিশ ফোর্স নিয়ে ওই বাড়িতে হাজির হন। কিন্তু সেখানে গিয়ে দেখতে পান বিয়ের প্রস্তুতি বা কোনো আলামতই নেই। এরপর তিনি ভুয়া অভিযোগকারীকে কনের বাড়িতে আসতে বলেন। এর কিছু সময়ের মধ্যেই নায়মুর কনের বাড়িতে হাজির হয়। কিন্তু তিনি তার দেওয়া অভিযোগের কোনো সত্যতা বা প্রমাণ দিতে ব্যর্থ হন। ভুয়া অভিযোগের বিষয়ে যুবককে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্ষায়ে স্বীকার করেন ফেসবুকে প্রেমের সম্পর্কের টানাপোড়েনের জেরেই তিনি মেয়ের পরিবারকে জব্দ করার জন্য এমন কাজটি করেছেন। এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে বাল্যবিয়ে নিরোধ আইন ২০১৭ অনুযায়ী ভুয়া অভিযোগকারী নায়মুরকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।