করোনা মহামারিসহ বিভিন্ন কারণে দীর্ঘ পাঁচ বছর অনুষ্ঠিত হয়নি ফরিদপুরের প্রধান উৎসব জসীম পল্লী মেলা। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় আগামীকাল ১৫ মে থেকে শুরু হচ্ছে জমীস পল্লী মেলা।

রোববার বিকেলে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে মেলার উদ্বোধন করবেন কবির জামাতা প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানি উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-এলাহী চৌধুরী বীর বিক্রম। পল্লীকবি জসীম উদ্দিন জন্মবার্ষিকীতে ১৯৮৯ সালের ১ জানুয়ারি থেকে পক্ষকালব্যাপী জসীম পল্লী মেলা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে শহরতলীর অম্বিকাপুরে কবির বাড়ির আঙ্গিনায় কুমার নদের পাড়ে জসীম উদ্যানে।

ফরিদপুরবাসীর দাবির প্রেক্ষিতে এবছর বিলম্বে হলেও মেলার আয়োজন করেছে জেলা প্রশাসন ও জসীম ফাউন্ডেশন। এবছর মেলায় ১৫৩টি স্টলে দেশের বিভিন্ন জেলার ব্যবসায়ীরা হরেক রকম পণ্যের পশরা সাজিয়ে বসবেন। মেলায় আগত দর্শনার্থীরা যাতে নির্বিঘ্নে চলাফেরা করতে পারেন সেজন্য ৩৫টি সিসি ক্যামেরা দ্বারা মেলার মাঠটিকে নিয়ন্ত্র করা হবে বলে জানিয়েছেন আয়োজকরা।

ঐতিহ্যবাহী এই মেলায় থাকছে হস্ত, মৃৎ, বাঁশ ও বেত শিল্পসহ গ্রামীণ মানুষের ব্যবহৃত নিত্যদিনের জিনিসপত্র। এছাড়াও শিশু-কিশোরদের বিনোদনের জন্য থাকছে সার্কাস, নাগরদোলাসহ বিভিন্ন রকমের রাইডস। প্রতিদিন বিকেল থেকে জসীম মঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। দেশের বিভিন্ন জেলার সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো জসীম মঞ্চে পল্লীগীতি, জারি, কবি গান, আবৃত্তি, নৃত্য ও লোকগান পরিবেশন করবে।

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক ও জসীম ফাউন্ডেশনের সভাপতি অতুল সরকার জানান, ফরিদপুরবাসীসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের মানুষ আমাকে অনুরোধ করেছে জসীম মেলা করার জন্য। যার কারণে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় মেলার আয়োজন করা হয়েছে। সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। মেলার মাধ্যমে পল্লীকবির জীবন ও রচনা নিয়ে আলোচনা হবে। ফলে কবির রচনা ও সৃষ্টি বেশি করে মানুষের মাঝে ছড়িয়ে পড়বে।