দেশ একটা কঠিন ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ‘একাত্তরে একটি সুখী, সমৃদ্ধ ও শান্তির দেশের জন্য আমরা যুদ্ধ করেছিলাম। তবে আজ আওয়ামী লীগের কার্যক্রমে আমরা হতাশ হয়ে পড়ছি। আওয়ামী লীগ স্বাধীনতার পক্ষের কথা বললেও বাস্তবে তারা স্বাধীনতাবিরোধী কাজ করছে। বর্তমানে গণতন্ত্রকে হত্যা করতে চাচ্ছে আওয়ামী লীগ সরকার। এখন টেলিভিশন, পত্রিকাসহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের দিকে তাকালে হত্যা, ধর্ষণ, রাহাজানির খবর ছাড়া কিছুই দেখা যায় না।’

শনিবার দিনাজপুর শহরের ইনস্টিটিউট মাঠে আয়োজিত জেলা বিএনপির দ্বিবার্ষিক সম্মেলন ও কাউন্সিলে প্রধান বক্তার বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন দলটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে উদ্দেশ করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আপনি বলেছেন, যেসব নেতা হাজার হাজার কোটি টাকা পাচার করেছেন তাদের আওয়ামী লীগে জায়গা হবে না। তাহলে আপনি নিজেই স্বীকার করেছেন, আওয়ামী লীগের নেতারা দুর্নীতি করে টাকা বিদেশে পাচার করেছেন।’

বিএনপির মহাসচিব আরও বলেন, ‘খালেদা জিয়া ও তার ছেলে তারেক রহমানের নেতৃত্বে এই দেশের গণতন্ত্র আবার ফিরিয়ে আসবে। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন করতে হবে। এজন্য দরকার দুর্বার আন্দোলন।’

জেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক ও সাবেক এমপি রেজিনা ইসলামের সভাপতিত্বে কাউন্সিলে দলটির ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, কেন্দ্রীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক প্রকৌশলী রিয়াজুল ইসলাম রিজু, রংপুর বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল খালেক প্রমুখ বক্তব্য দেন।