পীরগঞ্জে বারুণী মেলায় জাদু প্রদর্শনীর নামে অশ্নীল নাচ দেখানো হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকে পোস্ট দেওয়ায় শুক্রবার রাতে এক সংবাদকর্মীকে বেদম পিটিয়েছেন ইউপি চেয়ারম্যানের লোকজন। আহত সংবাদকর্মীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

অভিযোগ থেকে জানা যায়, ৭ নম্বর বড় আলমপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান সেলিমের নেতৃত্বে গত বৃহস্পতি ও শুক্রবার দু'দিন ধরে ধর্মদাসপুর বারুণী মেলায় জাদু প্রদর্শনীর নামে টিকিট কেটে অশ্নীল নাচের আয়োজন চলছিল। শুক্রবার রাতে জয়যাত্রা টেলিভিশনের পীরগঞ্জ প্রতিনিধি মিনহাজুল মিলন এ নিয়ে ফেসবুকে একটি পোস্ট দেন। বিষয়টি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নজরে এলে তাৎক্ষণিক তা বন্ধ করে দেয়। এতে চেয়ারম্যানসহ তার লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে মেলার মধ্যেই মিলনকে এলোপাতাড়ি মারধর করেন। এ সময় ক্ষিপ্ত চেয়ারম্যান তার লোকজনকে বলেন, 'ওকে (মিলনকে) সাইজ কর। সে নির্বাচনের সময়ও জ্বালাইছে।' এক পর্যায়ে স্থানীয়রা মিলনকে উদ্ধার করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

আহত মিলন জানান, চেয়ারম্যান সেলিমের নির্দেশে তার ফুফাতো ভাই রতন, চাচাতো ভাই রবিউল, মামা মাসুদ, খালাতো ভাই শফিকসহ সেরাজুল, আরফানসহ ১০-১২ জন তার ওপর অতর্কিত হামলা চালান।

তবে চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান সেলিমের দাবি, তিনি কাউকে হামলার নির্দেশ দেননি। বরং সাংবাদিক আহত হওয়ার খবর শুনে তাকে দেখতে হাসপাতালে গিয়েছিলেন।