কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচন গুরুত্ব সহকারে নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। কাজী হাবিবুল আউয়ালের নেতৃত্বাধীন কমিশনের দায়িত্ব গ্রহণের পর বড় ধরনের এই নির্বাচন ঘিরে ব্যাপক তোড়জোড় চলছে ইসি সচিবালয়ে। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নানা ধরনের কৌশল নিচ্ছে।
যদিও এই নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়েছে দেশের অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দল বিএনপি। তবুও প্রস্তুতিতে ঘাটতি রাখতে চায় না নতুন কমিশন। সাধারণত ভোটের কয়েক দিন আগে নির্বাচনী এলাকায় পুলিশ-র‌্যাবের পাশাপাশি বিজিবি মোতায়েন করা হয়। কিন্তু এবার এক মাস আগে আজ রোববার থেকে বিজিবি মাঠে নামছে। গত বৃহস্পতিবারই মাঠে নেমেছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা।

নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা শাহেদুন্নবী চৌধুরী গতকাল শনিবার বলেন, শুক্রবার নির্বাচনের চূড়ান্ত কেন্দ্র ও ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এ ছাড়া নির্বাচনে প্রার্থীদের ৯টি নির্দেশনা-সংবলিত বিজ্ঞপ্তিও প্রকাশ করা হয়েছে।

এদিকে ভোট দেওয়ার গোপন কক্ষ বাদে প্রতিটি ভোটকেন্দ্র্র ও কক্ষে সিসি ক্যামেরাও স্থাপন করতে যাচ্ছে কমিশন। রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় যাতে কোনো শোডাউন না হয় এবং নির্বাচনী আচরণবিধি কঠোরভাবে মানা হয়, তা নিশ্চিত করতেও স্থানীয় পর্যায়ে নির্দেশনা দিয়েছে কমিশন।

রিটার্নিং কর্মকর্তা জানিয়েছেন, নির্বাচনী তপশিল ঘোষণার পর ২৬ এপ্রিল থেকে ১০ মে পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কুমিল্লা সিটি করপোরেশন এলাকায় ২৩৭টি মোটরসাইকেল আটক করেছে। মামলা দিয়ে ৬ লাখ ৩০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। বিগত নির্বাচনের তুলনায় এবার দুটি কেন্দ্র বাড়লেও বুথ সংখ্যা একই থাকছে বলে জানিয়েছে ইসি।

১৫ জুন ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) এসব কেন্দ্রের ৬৪০টি বুথে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এবার নগরীর ২৭টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ২৯ হাজার ৯২০। এর মধ্যে নারী ভোটার ১ লাখ ১৭ হাজার ৯২ ও পুরুষ ভোটার ১ লাখ ১২ হাজার ৮২৬ জন। আর তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার রয়েছেন দুইজন।
রিটার্নিং কর্মকর্তা শাহেদন্নবী চৌধুরী বলেন, নতুন নির্বাচন কমিশন (ইসি) দায়িত্ব নেওয়ার পর সবচেয়ে বড় নির্বাচন হচ্ছে কুমিল্লা সিটি করপোরেশনে। কমিশন একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠান করতে চায়। তিনি বলেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) প্রতিনিয়ত মোবাইল ফোনে সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিচ্ছেন। তিনি বলেন, কোথাও কোনো অনিয়ম হলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। এরই মধ্যে পাঁচ প্রার্থীকে শোকজ করা হয়েছে এবং তারা এর জবাবও দিয়েছেন।