চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় আসামি ধরতে গিয়ে আসামির ধারালো দায়ের কোপে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে পুলিশ সদস্যের হাতের কব্জি। গুরুতর আহত পুলিশ কনস্টেবল জনি খানকে (২৮) চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। রোববার (১৫ মে) সকাল ১০টায় ঘটনাটি ঘটে। আসামি কবির আহমদ পলাতক রয়েছেন।

জানা গেছে, পদুয়া ইউনিয়নের লালারখিল এলাকার মৃত আলী হোসেনের পুত্র একাধিক মামলার আসামি কবির আহমদকে (৩৫) গ্রেপ্তার করতে লোহাগাড়া থানার এসআই ভক্ত চন্দ্র দত্ত, এএসআই মজিবুর রহমান, কনস্টেবল জনি খান ও শাহাদাত হোসেন পুলিশ পিকআপযোগে ঘটনাস্থলে যান।

একপর্যায়ে আসামির বাড়ি ঘেরাও করে তারা। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে কবির আহমদ তার বাহিনীকে খবর দেয়। এ সময় কবির আহমদ গ্রেপ্তার এড়াতে ধারালো দা দিয়ে পুলিশ সদস্যের হাতে আঘাত করে পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলেই কনস্টেবল জনির হাতের কব্জি বিছিন্ন হয়ে যায়। কনস্টেবল জনি ছাড়াও কনস্টেবল শাহাদত হোসেন ও স্থানীয় আবুল কাশেমও গুরুতর আহত হন।

আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এলাকাবাসী জানায়, কবির আহমদ আগেও একাধিক অপরাধ সংঘটিত করেছে।

লোহাগাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিকুর রহমান এ ব্যাপারে লিখিতভাবে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপারকে (বিশেষ শাখা) জানিয়েছেন বলে জানান।

এদিকে খবর পেয়ে সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শিবলী নোমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি জানান, ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেপ্তারের প্রচেষ্টা চলছে।