নড়াইলের লোহাগড়ার মটিয়াডাঙ্গা গ্রামে ছাগল চুরির অপবাদ দিয়ে ফরিদ শেখ ও তরিকুল ইসলাম নামের দুই যুবককে গাছে বেঁধে বেধড়ক মারধর ও সিগারেটের আগুন দিয়ে পুড়িয়ে নির্যাতন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। মেম্বার কালাম মুন্সীর নেতৃত্বে গত রোববার সকালে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্রেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গেলে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের জেরে ফরিদ ও তরিকুলকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে নান্নু শেখের দোকানের সামনে গাছে বেঁধে তিন ঘণ্টা ধরে লাঠি দিয়ে মারধর করা হয়। এ সময় তাদের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় সিগারেটের আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়া হয়।

হাসপাতালে ফরিদ ও তরিকুল জানান, মেম্বার কালাম, আজমল, নান্নু, ইজাজুল, রমজান, হুমায়ুনসহ কয়েকজন তাদের নির্যাতন করে। আজমল একটি হত্যা ও ১০ কোটি টাকা আত্মসাৎ মামলার আসামি। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ইউপি সদস্য কালাম ঘটনার সময় উপস্থিত থাকার কথা শিকার করে বলেন, ফরিদ ও তরিকুলকে গাঁজা খেতে নিষেধ করে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ আবু হেনা মিলন জানান, নির্যাতনের বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।