আজ থেকে দীর্ঘ ২২ বছর আগের ঘটনা। বন বিভাগের জমিজমা-সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষ বন কর্মকর্তাকে গুরুতর আহত করেন মো. হানিফ। এ ঘটনায় মামলা হলে দুই বছরের সাজা হয় তার। কিন্তু সাজা এড়াতে সাত বছর ধরে পলাতক ছিলেন তিনি। তাতেও অবশ্য শেষ রক্ষা হয়নি। শেষ পর্যন্ত পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয়েছেন ৫৫ বছর বয়সী এই ব্যক্তি।

বৃহস্পতিবার বিকেলে আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এর আগে সকালে উপজেলার চরক্লার্ক ইউনিয়নের বাংলাবাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার মো. হানিফ সুবর্ণচর উপজেলার চর ক্লার্ক ইউনিয়ন পরিষদের চরলক্ষ্মী গ্রামের মৃত জেবল হকের ছেলে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ২০০০ সালের হাবিবিয়া রেঞ্জের কার্যালয় ভবনের জমিজমা নিয়ে বিরোধের জেরে এক বন কর্মকর্তাকে পিটিয়ে আহত করেন হানিফ। এরপর মামলা হলে ২০১৬ সালে রায় হয়।

রায়ে হানিফকে দুই বছর ও দুই হাজার জরিমানা এবং অনাদায়ে দুই মাসের সাজা প্রদান করেন আদালত। পরে এ সাজা থেকে বাঁচতে তিনি রাজধানী ঢাকাসহ জেলার বিভিন্ন জায়গায় পলাতক ছিলেন। গোপন সংবাদ পেয়ে চরজব্বার থানার পুলিশ অভিযান চালিয়ে সাত বছর পর তাকে গ্রেপ্তার করে।

চরজব্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জিয়াউল হক বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে মো. হানিফকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তারের পর তাকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।