হঠাৎ করেই পদ্মা ও যমুনা নদীর পানি বাড়ার কারণে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়ায় সচল থাকা ৫টি ফেরি ঘাটের মধ্যে দুটি ফেরি ঘাট তলিয়ে গেছে। দুর্ঘটনা এড়া‌তে ৪ ও ৫ নম্বর ঘাট দি‌য়ে যানবাহন পারাপার বন্ধ রেখেছে ঘাট কর্তৃপক্ষ। এ করণে দৌলতদিয়া প্রান্তে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়েছে

দৌলতদিয়ার ৭টি ফেরি ঘাটের মধ্যে আগে থেকেই দুটি ফেরি ঘাট বন্ধ রয়েছে। পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় নতুন করে আরো ২টি ফেরি ঘাট বন্ধ হয়ে যাওয়ায় দৌলতদিয়া ঘাট অভিমুখে আটকা পড়েছে নদী পারের অপেক্ষায় থাকা শত শত যানবাহন। শুক্রবার দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় এমন চিত্র দেখা যায়।

বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ঘাট কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, হঠাৎ করে পদ্মা ও যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ৪ ও ৫ নম্বর ঘাটের পন্টুনের উপর পানি উঠতে শুরু করে। বর্তমানে ঘাট দুটির সংযোগ সড়কসহ পন্টুনের এক-তৃতীয়াংশ পানির নিচে রয়েছে। তাই ওই ঘাট দুটি দিয়ে সব ধরণের যানবাহন ফেরিতে ওঠানামা বন্ধ রাখা হয়েছে।

এদিকে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে বর্তমানে ২১টি ফেরি রয়েছে। এর মধ্যে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেওয়ায় দুটি ফেরিকে মেরামত করার জন্য পাটুরিয়ার ভাসমান কারখানা মধুমতিতে রাখা হয়েছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, ঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের গোয়ালন্দ পদ্মার মোড় পর্যন্ত দীর্ঘ ৫ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। ফেরি পাপারের অপেক্ষায় আটকা পড়েছে অন্তত ৫ শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক ও যাত্রীবাহী যানবাহন। দীর্ঘ সময় ঘাট এলাকায় যানজটে আটকে থাকায় যাত্রীদের চরম ভোগা‌ন্তি পোহা‌তে হ‌চ্ছে।

ফেরি পার হওয়ার অপেক্ষায় থাকা যানবাহনের দীর্ঘ সারি। ছবি- সমকাল

রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া প্রান্তে ফেরিঘাট রয়েছে মোট ৭টি। এর মধ্যে ৩, ৬ ও ৭ নং ফেরিঘাট বর্তমানে সচল রয়েছে। সচল থাকা ৩ নম্বর ঘাট দিয়ে শুধুমাত্র পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার করা হচ্ছে। আর ৭ নম্বর ঘাট দিয়ে ব্যক্তিগত গাড়ি, পণ্যবাহী ট্রাক ও যাত্রীবাহী বাস পারাপার করানো হচ্ছে।

এছাড়া দীর্ঘদিন বন্ধ রাখার পর শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে ৬ নম্বর ফেরি ঘাটটি চালু করা হয়েছে। তবে এই ঘাটে শুধুমাত্র ছোট ফেরি ভিড়তে পারছে। এদিকে বেলা সাড়ে ১২ পর্যন্তও বন্ধ থাকা ফেরি ঘাটগুলো সচল করা সম্ভব হয়নি।

দর্শনা থেকে ছেড়ে আসা দর্শনা ডিলাক্স (ডিডি) পরিবহনের চালক মিজানুর রহমান বলেন, আমাদের গাড়িটি বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২ টার সময় গোয়ালন্দ জামতলা এসে সিরিয়ালে আটকা পরে। সামনে যাওয়ার পরই জানতে পারি, পন্টুনে পানি উঠার কারণে দুটি ঘাট বন্ধ হয়ে গেছে। ৮ ঘণ্টা সিরিয়ালে আটকে থেকে ফেরির দেখা পেয়েছি।

বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ঘাট শাখার ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) শিহাব উদ্দিন বলেন, হঠাৎ নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় দৌলতদিয়া প্রান্তে দুটি ঘাট ও পাটুরিয়া প্রান্তে একটি ঘাট বন্ধ হয়ে যাওয়ায় এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। দৌলতদিয়া প্রান্তে ঘাট দুটি দ্রুত সংস্কার করে যানবাহন পার হওয়ার উপযোগী করা হবে।

তিনি আরও জানান, দীর্ঘদিন যাবত বন্ধ ৬ নম্বর ফেরি ঘাটটি চালু করা হয়েছে। বন্ধ ঘাট দুটি চালু হলে যানবাহনের সিরিয়াল কমে যাবে। তিনি আরো বলেন, যাত্রীবাহী যানবাহন ও পচনশীল পণ্যবাহী গাড়িগুলো অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পারাপার করানো হচ্ছে।