নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, সরকার জিডিপি-রিজার্ভের কথা বলে আমাদের মিথ্যা তথ্য দেয়। বাংলাদেশে যে পরিমাণ রিজার্ভ আছে, তা দিয়ে আর মাত্র ৫ থেকে ৬ মাস বিদেশি ব্যয় মেটাতে পারবে। এরপর আর ব্যয় মেটাতে পারবে না। তার মানে, সরকার দেউলিয়া হতে বসেছে।

দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে নাগরিক যুব ঐক্য আয়োজিত এক সভায় তিনি এসব কথা বলেন। প্রতিবাদ সভায় নাগরিক যুব ঐক্যের নেতারা বক্তব্য দেন।

মান্না বলেন, করোনার সময় সরকার সান্ত্বনা দিয়েছে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ভালো আছে। আরও বেশি বেশি টাকা আসছে। যখন বৈদেশিক মুদ্রা কমার কথা, তখন আরও বাড়ছে- সরকার মিথ্যা কথা বলে। এখনও আমাদের যথেষ্ট পরিমাণে বিদেশ থেকে পণ্য আমদানি করতে হয়। আমদানি যদি করতে হয় ১০ টাকার, সরকারের ব্যবসায়ীরা সেটাকে বলে ১৬ টাকা। বাকি ৬ টাকা তারা পাচার করে।

তিনি আরও বলেন, সরকারি ব্যাংক থেকে প্রতিবছর ৭০ হাজার থেকে ১ লাখ কোটি টাকা বিদেশে পাচার হয়। এছাড়া হুন্ডির মাধ্যমে ও বিভিন্ন উপায়ে আরও লাখ কোটি টাকা পাচার হয়ে যায়। সরকার এ সম্পর্কে কিছু জানে না। এখন সরকারি ও আধা-সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশ সফর বন্ধ করে দিয়েছে। কারণ তাদের কাছে ডলার নেই। সরকারি কর্মচারীদের বিদেশ ভ্রমণ বন্ধ করেন; কিন্তু মন্ত্রীরা কি পরিমাণ বিদেশ গেছেন, কোনো প্রয়োজন ছাড়া তার হিসাব করেন। শুধু সরকারি কর্মচারীদের দোষ দিলে লাভ কী হবে।