ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গীতে মুরগির মাংস বিক্রির ঘটনার ১০ দিন পরই মরা ছাগল জবাই করে মাংস বিক্রির অভিযোগে নজরুল ইসলাম (৪৬) ওরফে ইদু নামে এক কসাইকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয়রা।

শুক্রবার দুপুরে উপজেলা পরিষদের ভেতরে মরা ছাগল জবাই করে গেটের সামনে বিক্রির চেষ্টা করছিলেন বলে জানা গেছে। স্থানীয়রা দেখে ফেলে হাতেনাতে আটক করে উত্তম-মাধ্যম দেয়। আটক কসাই উপজেলার বড়বাড়ি ইউনিয়নের ধনিবস্তী মহাজনহাট গ্রামের শরিফ উদ্দীনের ছেলে।

বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সাব-ইন্সপেক্টর আব্দুল গফুর বলেন, ‘সকালে উপজেলা পরিষদের ভেতরে মরা ছাগল জবাই করার পর ওই ছাগলের গায়ে গরুর রক্ত মেখে মাংস বিক্রির সময় স্থানীয়রা দেখে ফেলে। পরে মরা ছাগল ও কসাইকে আটক করে আমিসহ উপস্থিত লোকজন বালিয়াডাঙ্গী থানায় খবর দিলে ঘটনাস্থল থেকে কসাইকে পুলিশ আটক করে থানায় নিয়ে যায়। ছাগলটিকে মাটিতে পুঁতে ফেলা হয়েছে এবং ইউএনও স্যারকে মুঠোফোনে অবগত করার পর তিনি ছুটিতে থাকার কারণে রোববার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেছেন।’

বালিয়াডাঙ্গী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খায়রুল আনাম ডন বলেন, কসাই নজরুল ইসলামকে আটক করে থানায় আনা হয়েছে। ইউএনওর সঙ্গে কথা বলে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, ১০ মে মরা মুরগির মাংস রান্না করে বিক্রির দায়ে হোটেলমালিক সেলিম উদ্দীনকে ৫ হাজার টাকা ও মাংস বিক্রেতা আব্দুলকে ১০ হাজার অর্থদণ্ড করা হয়। ওই হোটেলের সামনে থেকেই মরা ছাগলের মাংস বিক্রির অভিযোগে কসাইকে আটক করা হয়েছে।