ভারতের বেঙ্গালুরুতে বাংলাদেশি নারীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় ১১ জনকে কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির আদালত। কারাদণ্ডপ্রাপ্তরা সবাই বাংলাদেশি বলে জানা গেছে। এদের মধ্যে তিনজন নারীও রয়েছেন। শুক্রবার বেঙ্গালুরুর অতিরিক্ত ‘সিটি সিভিল এন্ড সেশন’ আদালতের বিচারক এন. সুব্রামন্যা নয় মাস থেকে সর্বোচ্চ যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের রায় ঘোষণা করেছেন।


এদের মধ্যে সাতজনকে যাবজ্জীবন কারদণ্ড, একজনকে ২০ বছর এবং দুইজনকে নয় মাসের কারাদণ্ডের রায় দেন আদালত।  

অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দন্ডবিধির ১২০ (বি), ২০১, ২০৪, ৩২৩, ৩২৪, ৩৪৩, ৩৬৬(বি), ৩৭০(এ), ৩৭৬(ডি), ৩৭৬, ৩৮৪, ৫০৪, ৫০৬ ধারা, ইমমরাল ট্রাফিকিং প্রিভেনশন অ্যাক্ট’এর ৪ ও ৫ ধারা, ইনফরমেশন টেকনলজি অ্যাক্টের ৬৭(এ) ধারা এবং ১৪ ফরেনারস অ্যাক্টে মামলা দায়ের করা হয়।


রায়ে চাঁদ মিয়া ওরফে সবুজ, রফিকাদুল ইসলাম ওরফে টিকটক হৃদয় বাবু, মহম্মদ আলামিন হোসেন ওরফে রফসান মন্ডল, রাকিবুল ইসলাম ওরফে সাগর, মহম্মদ বাবু শেখ, মহম্মদ ডালিম ও আজিম হোসেনসহ সাতজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড, তানিয়া খানকে ২০ বছরের কারাদণ্ড এবং অন্য দুইজন নারী নুসরাত ও কাজলকে ৯ মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য ২০২১ সালের ১৮ মে ভারতে বাংলাদেশি নারী সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হন। এ ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।