অফিস দখল নিয়ে সংঘর্ষে শ্রমিক নেতাসহ তিনজন আহত হওয়ার ঘটনায় অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি পালন করছেন বরগুনার ট্রাক শ্রমিকরা। রোববার সকাল থেকে তারা কর্মবিরতি ঘোষণা করে অবস্থান নেন।

এর আগে শনিবার দুপুরে অফিস দখল নেওয়াকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে জড়ায় দুটি গ্রুপ। এতে দুইজন শ্রমিক নেতা আহত হন।

জানা যায়, শনিবার দুপুরে বরগুনার টাউন হল এলাকায় বেসিক ট্রেড ইউনিয়ন ও আন্তজেলা ট্রাক শ্রমিকদের দুটি গ্রুপ মুখোমুখি অবস্থান নিয়ে সংঘর্ষে জড়ান। এতে বেসিক ট্রেড ইউনিয়নের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জুলহাস মিয়াসহ তিনজন শ্রমিক নেতা আহত হন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে লাঠিচার্জ করে দুই গ্রুপকে ছত্রভঙ্গ করে দেয় পুলিশ। পরে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশও মোতায়েন করা হয়।

বেসিক ট্রেড ইউনিয়নের সভাপতি ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম বলেন, অফিস দখলের মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে এর আগেও আমাদের শ্রমিকদের ওপর তারা হামলা করেছে। উল্টো তারা বহিরাগত সন্ত্রাসীদের সহায়তায় আমাদের অফিস দখল করেছে, চাঁদাবাজি করছে। শনিবার আবারও বহিরাগত সন্ত্রাসীদের দিয়ে নিরীহ শ্রমিকদের ওপর আতর্কিত হামলা করা হয়। হামলায় তিনজন শ্রমিক নেতা গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছেন। আমাদের লোকদের ওপর হামলায় জড়িতদের বিচারের আওতা না আনা পর্যন্ত কর্মবিরতি চলবে।

বরগুনা আন্তজেলা ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক মঞ্জুরুল আলম জন অভিযোগ করেন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম গতবছরের সেপ্টেম্বরে বরিশাল থেকে বেসিক ট্রেড ইউনিয়ন বরগুনা জেলা শাখার নামে একটি সংগঠন নিয়ে আসেন। ওই সংগঠনের সভাপতি হিসেবে তিনি আন্তজেলা ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়ন অফিস দখলের চেষ্টাসহ ট্রাক শ্রমিকদের কাছ থেকে চাঁদাবাজি করছেন। এ নিয়ে শ্রমিকদের মধ্যে অসন্তোষ সৃষ্টি হয়েছে। আমাদের শ্রমিকরা তাদের ওপর হামলা করেনি।

বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলী আহম্মেদ বলেন, শনিবার থেকেই ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে অতিরিক্ত পুলিশ ও গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ রয়েছে ঘটনাস্থলে।