নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের চৌমুহনী বাজারে প্রকাশ্যে ব্যবসায়ী মো. আইমানকে (২০) ছুরিকাঘাতে হত্যার ঘটনার দায় স্বীকার করে তিন আসামি আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে। রোববার রাত ৯টার দিকে জেলার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তৌহিদুল ইসলামের আদালতে জবানবন্দি দেন তারা।

বেগমগঞ্জ মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, রোববার রাত ৯টার দিকে জেলার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তৌহিদুল ইসলাম ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় অভিযুক্ত তিন আসামির জবানবন্দি রেকর্ড করেন। পরে আসামিদের জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরো জানান, এর আগে তিন আাসামি রাকিব, রিমন ও পাভেলকে আদালতে আনা হয়। এসময় তারা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে রাজি হলে তাদের ম্যাজিস্ট্রেটের খাস কামরায় নেয়া হয়। 


এর আগে শনিবার রাত পৌনে ৮টার দিকে চৌমুহনী বাজারের ডিবি রোডের হোসেন সুপার মার্কেটের সামনে ব্যবসায়ী মো. আইমানকে প্রকাশ্যে ছুরিকাঘাতে করে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। নিহত মো. আইমন (২০) উপজেলার চৌমুহনী পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের গণিপুর এলাকার নুরনবীর ছেলে।

এ ঘটনায় পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের আব্দুল হাই মিলনের ছেলে মো. পাভেল, একই ওয়ার্ডের বাচ্চু মিয়ার ছেলে মো. রাকিব (২০) ও আজাদ মিয়ার ছেলে রিমনকে আটক করেছে পুলিশ। পরবর্তীতে নিহতের বড় ভাই বাদি হয়ে তিনজনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত আরও ১০-১২ জনকে আসাামি করে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

বেগমগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জাহেদুল হক রনি বলেন, গ্রেপ্তার তিন আসামি নিজেদের দোষ স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে আরও কেউ সংশ্লিষ্ট আছে কিনা, সেটা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।