লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে স্ত্রীকে গলাটিপে হত্যার দায়ে স্বামী মো. রাশেদকে (২৬) যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। 

সোমবার দুপুরে সাড়ে ১২ টার দিকে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ রহিবুল ইসলাম এ রায় ঘোষণা করেন।

আসামি রাশেদ রায়পুর উপজেলার দক্ষিণ রায়পুর গ্রামের বাসিন্দা।

নিহত ভিকটিম সীমা আক্তার সুমী (১৯) একই উপজেলার দক্ষিণ চর বংশী ইউনিয়নের চর বংশী গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন। 

বিয়ের ছয় মাসের মাথায় ২০২০ সালের ৩ মে রাতে স্বামী রাশেদ তাকে গলাটিপে হত্যা করে। 

জেলা জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) অ্যাডভোকেট জসিম উদ্দিন রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

তিনি জানান, ৩০২ ধারায় হত্যার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত আসামি রাশেদের যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড এবং ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন।

তিনি আরও জানান, ২০২০ সালের ১৯ অক্টোবর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রায়পুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ইয়াছিন আরাফাত রাশেদকে অভিযুক্ত করে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করে। গ্রেপ্তারের পর থেকে আসামি রাশেদ কারাগারে বন্দি ছিল। রায় ঘোষণার সময় সে আদালতে উপস্থিত ছিলো। 

মামলা ও আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০২০ সালের ৩ মে গভীর রাতে রাশেদের সঙ্গে তার স্ত্রী সীমা আক্তার সুমীর কথা কাটাকাটি হয়। এর জের ধরে সে তর স্ত্রীকে গলাটিপে হত্যা করে। পরদিন পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত করায়। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনের তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়।

পরে একই বছরের ১৬ জুলাই নিহত সুমীর মা হাজেরা বেগম বাদী হয়ে জামাতা রাশেদকে আসামি করে রায়পুর থানায় হত্যা মামলা করে। পরদিন পুলিশ রাশেদকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করলে সে ১৬৪ ধারায় দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দেয়।