গায়ে নোংরা জামাকাপড়। হাতে ছেঁড়া ব্যাগ। দাড়ি-গোফ-চুলে ময়লা। প্রথম দর্শনে ওদের পাগল মনে হলেও আসলে তা নয়। পাগলের বেশ ধরে মহাসড়কে ঘুরে বেড়ায়। লক্ষ্য থাকে মোটরসাইকেল ছিনতাই। বছরের পর বছর ধরে ঢাকা-ময়মনসিংহ, ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ও আশপাশের এলাকায় এভাবে অপরাধ করে আসছে চক্রটি। দু’জনকে গ্রেপতারের পর গতকাল সোমবার এ তথ্য জানিয়েছে গাজীপুরের পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) কর্মকর্তারা।

তারা হলো রায়হান প্রামাণিক ও হাসমত আলী। ফারুক হোসেন নামের এক ব্যক্তির মোটরসাইকেল ছিনতাইয়ের ঘটনার তদন্তে নেমে চক্রটির সন্ধান পায় পিবিআই।

গাজীপুর জেলা পিবিআইর পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ মাকছুদের রহমান বলেন, রোববার ভোরে ওই দু’জনকে গ্রেপ্তারের পর তারা আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। এতে মোটরসাইকেল ছিনতাইয়ের নানা কৌশলও জানায়।

পিবিআইর এসপি বলেন, সঙ্গে থাকা ব্যাগে নানা রকম অস্ত্র রাখে ওই দুর্বৃত্তরা। টার্গেট করা মোটরসাইকেলের পিছু নেয় চক্রটির সদস্যরা। সুবিধামতো জায়গায় কখনও গতিরোধ করে, কখনও পেছন থেকে আঘাত করে চালককে। পরে মোটরসাইকেল নিয়ে চম্পট দেয়।

পিবিআই জানায়, গত বছরের ২৩ নভেম্বর রাতে গাজীপুরের সফিপুর এলাকায় চক্রটির কবলে পড়েন ঢাকার ধামরাইয়ের গোলাকান্দা গ্রামের হায়েত আলীর ছেলে ফারুক হোসেন। পাগলবেশী দুর্বৃত্তরা তাঁর গতিরোধ করে মাথায় আঘাত করে। পরে ফারুকের মোটরসাইকেল নিয়ে চলে যায়।