নীল রঙের প্লাস্টিকের ড্রামটি খাল-সংলগ্ন ইটের স্তূপের পাশে রাখা। ড্রামের ঢাকনা খোলা। ভোরে খালের পাশের সড়কে হাঁটতে গিয়ে পথচারীদের চোখে পড়ে ড্রামটি। কাছে গিয়ে উঁকি মেরে দেখেন মানুষের পা ওপরের দিকে। এরপরই একজন জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯-এ ফোন করে বিষয়টি জানান। পুলিশ গিয়ে খণ্ডিত ও রাসায়নিকে ঝলসানো বিকৃত লাশটি উদ্ধার করে। 

ঘটনাটি রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থানার মৃধাবাড়ির। আজ মঙ্গলবার সকালে লাশটি উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়। এটি পুরুষের লাশ। ডান পায়ের হাঁটুর ওপর থেকে বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের ওয়ারী বিভাগের উপকমিশনার শাহ্‌ ইফতেখার আহমেদ সমকালকে বলেন, ধারণা করা হচ্ছে, সোমবার রাতে হত্যাকাণ্ড ঘটিয়ে লাশ গুমের উদ্দেশ্যে ড্রামের মধ্যে অ্যাসিড দিয়ে ঝলসে দেওয়া হয়েছে। চেনার উপায় নেই। ঝলসানোর কারণে আঙুলের ছাপও নেওয়া সম্ভব হয়নি। পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানিয়েছে, মৃধাবাড়ির জিয়া সরণিতে পয়ঃনিস্কাশনের খালের পাশেই ড্রামটি রাখা ছিল। খুনের পর লাশের ডান পায়ের হাঁটুর ওপর থেকে বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। ড্রামের মধ্যে লাশের মাথা নিচের দিকে ছিল। পায়ের কাটা অংশটিও ড্রামের ভেতরে ছিল। পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) ক্রাইম সিন ইউনিট ঘটনাস্থল থেকে আলামত সংগ্রহ করেছে।