বগুড়ার শেরপুরে বিয়ের প্রলোভনে প্রেমিকাকে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগে প্রেমিক নাহিদ হাসানের (২৪) বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে। বুধবার (২৫ মে) দুপুরে ধর্ষণের শিকার ওই তরুণী বাদী হয়ে শেরপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ওই মামলাটি দায়ের করেন। পরে অভিযান চালিয়ে প্রেমিক নাহিদ হাসানকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তিনি উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের ভাদাইসপাড়া গ্রামের আব্দুস সালামের ছেলে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ৮ বছর আগে উপজেলার বিশালপুর ইউনিয়নের ভাদার গ্রামের ওই তরুণীর সঙ্গে পাশের মির্জাপুর ইউনিয়নের ভাদাইসপাড়া গ্রামের নাহিদ হাসানের পরিচয় ঘটে। একপর্যায়ে তাদের দুজনের মধ্যে গড়ে ওঠে প্রেমের সম্পর্ক। পরবর্তীতে নাহিদ বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে চলতি বছরের ৫ এপ্রিল তার বাড়িতে নিয়ে যায় ওই তরুণীকে।

এ সময় বাড়িতে কেউ ছিলেন না। তাই ফাঁকা বাড়িতে ওই প্রেমিকাকে দুই দিন আটকে রেখে একাধিকবার ধর্ষণ করে সে। এরপরই বেড়িয়ে আসে নাহিদের আসল চেহারা। বিয়ের কথা বললে শুরু করে তালবাহানা। বিয়ের জন্য বিভিন্ন প্রকার চাপ দেওয়া হলেও রাজি না হওয়ায় অবশেষে ওই প্রেমিকের বিরুদ্ধে আইনের আশ্রয় নেওয়া হয়েছে বলে এজাহারে উল্লেখ করা হয়।

শেরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহিদুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় থানায় মামলা নেওয়া হয়েছে। সেইসঙ্গে মামলায় অভিযুক্ত নাহিদ হাসানকে গ্রেপ্তার করে বুধবার বিকেলেই বগুড়ায় আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। এছাড়া ধর্ষণের শিকার ওই নারীকে উদ্ধার করে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়।