প্রেমিকাকে ভিডিওকলে রেখে আত্মহত্যা করেছেন অভিমানী এক কলেজশিক্ষার্থী। তাঁর নাম ফজলে রাব্বি সোলাইমান। মঙ্গলবার রাত আড়াইটার দিকে চুয়াডাঙ্গা শহরের চক্ষু হাসপাতালপাড়ায় ভাড়া বাসায় গলায় ফাঁস দিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেন।

বুধবার জানাজা শেষে তাঁর লাশ দাফন করা হয়েছে। তিনি সদর উপজেলার বোয়ালমারী গ্রামের টুলু মিয়ার ছেলে এবং চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের সম্মান তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন।

নিহতের পরিবারের সদস্যরা জানান, পড়াশোনার পাশাপাশি বেসরকারি স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র সনো সেন্টারে এক্স-রে বিভাগে কাজ করত সোলাইমান। সে গলায় ফাঁস দিয়েছে বলে ঘটনার সময় রাত ২টার দিকে অজ্ঞাত এক নারী ফোন করে জানান। তাৎক্ষণিকভাবে গেলে তাঁর ঘরের দরজা বন্ধ পাওয়া যায়। প্রতিবেশীদের সহযোগিতায় দরজা ভেঙে ভেতরে গিয়ে তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পথে মৃত্যু হয়। পরে জানা যায়, প্রেমিকার সঙ্গে ভিডিওকলে কথা বলার সময় মনোমালিন্য হওয়ায় অভিমান করে আত্মহত্যা করেছেন সোলাইমান।

ওই নারীর নম্বরে ফোন করলে তিনি জানান, তাঁর নাম শুভ। বাড়ি চুয়াডাঙ্গায়। ঢাকায় একটি ছাত্রী মেসে থাকেন এবং একটি বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অনার্স প্রথম বর্ষে পড়েন। সোলাইমানের সঙ্গে তাঁর প্রেমের সম্পর্ক ছিল।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ওসি মোহাম্মদ মহসিন বলেন, সোলাইমানের আত্মহত্যার বিষয়ে তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি।