সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রথমবারের মতো সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে 'কক্লিয়ার ইমপ্লান্ট সার্জারি'। বুধবার দু'জন জন্মবধিরের কানে কক্লিয়ার ইমপ্লান্ট স্থাপন করে চিকিৎসক দল।

ঢাকা ও ওসমানী হাসপাতালের নাক, কান, গলা ও হেড সার্জারি বিভাগের একদল সার্জন দুটি দলে ভাগ হয়ে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে বাক ও শ্রবণপ্রতিবন্ধী ৪ বছর বয়সী আদ্রিকা রায় কথা ও দুই বছর বয়সী তাসফিয়া জান্নাতের কানে কক্লিয়ার ইমপ্লান্ট স্থাপন করে।

অস্ত্রোপচারের পর তারা সুস্থ আছে বলে জানিয়েছেন কক্লিয়ার ইমপ্লান্ট কার্যক্রমের পরিচালক ও ওসমানী হাসপাতালের নাক, কান ও গলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. নুরুল হুদা নাঈম।

জানা গেছে, সার্জিক্যাল টিমের প্রধান অধ্যাপক ডা. মনিলাল আইচ লিটুর সার্বিক তত্ত্বাবধানে প্রথম অস্ত্রোপচার দলের নেতৃত্বে ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ডা. কানু লাল সাহা। তার সঙ্গে ছিলেন ওসমানী হাসপাতালের নাক, কান ও গলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. কৃষ্ণকান্ত ভৌমিক, ডা. হাসান আতিক চৌধুরী, ডা. তারিকুল ইসলাম ও ডা. অরূপ রাউৎ।

দ্বিতীয় অস্ত্রোপচারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ডা. হারুনুর রশীদ তালুকদার ইয়ামিনের নেতৃত্বে দলের সদস্য ছিলেন সহকারী অধ্যাপক ডা. মো. শাহ কামাল, ডা. মেশকাত রায়হান, ডা. মাছুম বিল্লাহ ও ডা. বিনয় সেন।