যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের দক্ষিণে উভালডে রব এলিমেন্টারি স্কুলে বন্দুকধারী যখন তাণ্ডব চালাচ্ছিল তখন স্কুলের বাইরে থাকা মানুষজন সেখানে উপস্থিত পুলিশ সদস্যদের ভেতরে গিয়ে অভিযান চালাতে বলেছিলেন। কিন্তু পুলিশ সদস্যরা তা করেননি বলে অভিযোগ করেছে প্রত্যক্ষদর্শীরা। এ ছাড়া এক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, পুলিশের কর্মকাণ্ডে হতাশ হয়ে তিনি ভেতরে যাবেন বলেও ভেবেছিলেন। 

এদিকে টেক্সাস কর্তৃপক্ষ বলছে, বন্দুকধারী সালভাদর রামোস পুলিশের অভিযানে নিহত হওয়ার আগে প্রায় ঘণ্টাখানেক স্কুলটিতে ছিলেন। বৃহস্পতিবার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি অনলাইন এই সংবাদ প্রকাশ করেছে। 

জুয়ান ক্যারেঞ্জা নামে ২৪ বছর বয়সী এক প্রত্যক্ষদর্শী বার্তা সংস্থা এপিকে বলেছেন, স্কুলের বাইরে থাকা নারীরা চেঁচিয়ে চেঁচিয়ে পুলিশ কর্মকর্তাদের ভেতরে যেতে বলেছিলেন। কিন্তু পুলিশ সদস্যরা ভেতরে যায়নি। জুয়ান তার বাড়ির বাইরে দাঁড়িয়ে ঘটনাটি প্রত্যক্ষ করছিলেন বলে জানান। 

স্কুলের এই গুলির ঘটনায় মেয়েকে হারিয়েছেন জ্যাভিয়ার ক্যাজারেস নামের এক ব্যক্তি। তিনি এপিকে জানান, তাকেও অন্য দর্শনার্থীদের সঙ্গে দৌড়াতে বলা হয়েছিল, কারণ ‘পুলিশ কিছু করছিল না’। 

কর্তৃপক্ষ বলছে, ওই বন্দুকধারী নিজেকে একটি ক্লাসরুমে তালবদ্ধ করে রাখে। পরে সেখানে ঢুকতে পুলিশ কর্মকর্তাদের অনেক কাঠখড় পোড়াতে হয়।

এদিকে টেক্সাস জননিরাপত্তা বিভাগের পরিচালক স্টিভেন ম্যাক্রোও বুধবার সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী বন্দুকধারীকে নিবৃত্ত করার আগে স্কুলটিতে সে ৪০ মিনিট থেকে এক ঘণ্টার মতো ছিল। 

অন্যদিকে ইউএস বর্ডার পেট্রোল চিফ রাউল অত্রিজ সিএনএনকে বলেছেন, ডজনখানেক কর্মকর্তা ওই গুলির ঘটনায় কাজ করেছেন এবং তারা কোনোভাবে দ্বিধান্বিত ছিলেন না। তারা ক্লাসরুমে প্রবেশ করেন এবং যত দ্রুত পেরেছেন তারা পরিস্থিতির নিয়ন্ত্রণ নিয়েছেন। 

প্রসঙ্গত, যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের দক্ষিণে উভালডে এলাকায় মঙ্গলবার রব এলিমেন্টারি স্কুলে এক বন্দুকধারীর গুলিতে ১৯ শিক্ষার্থীসহ ২১ জন নিহত হয়েছে। নিহত শিশু শিক্ষার্থীদের বয়স ৭ থেকে ১০ বছর। এই ঘটনায় বন্দুকধারী সালভাদর রামোসও নিহত হয়েছেন।