চট্টগ্রামে চলন্ত বাসে পোশাককর্মী ধর্ষণচেষ্টার মামলায় বাসচালক ও তার সহকারীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। 

বুধবার গভীর রাতে হাটহাজারী থানার পশ্চিম কুয়াইশ ও নগরীর সিঅ্যান্ডবি এলাকা থেকে তাদের দু’জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ সময় বাসটিও জব্দ করা হয়।

গ্রেপ্তার চালক-সহকারী হলেন- চন্দনাইশ থানার দেওয়ানহাট গ্রামের বাছা মিয়ার ছেলে মো. আনোয়ার হোসেন টিপু (২২) ও পটিয়া থানার কেলিশহর গ্রামের মিঠুন দাশের ছেলে জনি দাশ (২০)।

এর আগে গত ১৯ মে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে চট্টগ্রাম নগরের কর্ণফুলী সেতু সড়কের রাহাত্তারপুল এলাকায় অচেতন অবস্থায় ওই তরুণীকে উদ্ধার করেন স্থানীয়রা। গত মঙ্গলবার তার সংজ্ঞা ফিরে।

পুলিশের কাছে ওই তরুণী অভিযোগ করেছেন, চালক ও হেলপারের ধর্ষণের হাত থেকে বাঁচতে চলন্ত বাস থেকে লাফ দিয়েছিলেন তিনি। ওইদিন তাদের বিরুদ্ধে নগরীর বাকলিয়া থানায় মামলাও করেন তরুণী।

পুলিশ সূত্র জানায়, ১৯ বছর বয়সী ওই তরুণী নগরীর কালুরঘাট বিসিক এলাকার একটি পোশাক কারখানার শ্রমিক। তার বাসা চান্দগাঁও থানা এলাকায়। প্রতিদিন কারখানার শ্রমিকবাহী বাসে করে বাসায় যাতায়াত করতেন তিনি। ঘটনার দিন রাত নয়টায় বাসায় ফেরার জন্য অন্য শ্রমিকদের সঙ্গে তিনিও বাসটিতে উঠেন।

বাসটি বহদ্দারহাট মোড়ে পৌঁছালে অন্য শ্রমিকরা বাস থেকে নেমে গেলেও পেছনের আসনে থাকায় তার নামতে দেরি হয়। এ সময় চালক তাকে পেছনে টেনে নিয়ে যান। তখন হেলপার বাসটি চালাচ্ছিলেন। গাড়িতে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়। ধর্ষণের হাত থেকে বাঁচতে চালকের সঙ্গে ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে রাহাত্তারপুল এলাকায় ওই তরুণী চলন্ত বাস থেকে লাফ দেন।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) নোবেল চাকমা বলেন, সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করে বাসটি শনাক্ত করা হয়। এরপর অভিযান চালিয়ে চালক ও তার সহকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাসটি জব্দ করা হয়েছে।