ছিনতাই-চাঁদাবাজিতে জড়িত থাকার অভিযোগে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে ২৬ জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। বৃহস্পতিবার দিনভর এ অভিযান চালানো হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে চাঁদাবাজির টাকা ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে বলে র‌্যাব কর্মকর্তারা জানান।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন-চাঁদাবাজ চক্রের সদস্য মোশারফ হোসেন, মাসুদ রায়হান, মো. রোকন, বিল্লাল হোসেন, আকতার হোসেন, মো. হারুন, সাহেব আলী, মো. জুয়েল, আরিফ চৌধুরী, আল আমিন, সুমন, রানা, ইমান আলী ও ইকবাল।

তাদের কাছে ৪৪ হাজার ৯৯০ টাকা ও ১৫টি মোবাইল ফোন পাওয়া গেছে। অপর অভিযানে গ্রেপ্তার ছিনতাইকারী চক্রের সদস্যরা হলেন- সুমন, আবদুর রহমান, সাইফুল মিয়া, রিপন মিয়া, আমিরুল ইসলাম, নিত্যানন্দ অধিকারী, আনোয়ার হোসেন, মো. সোহেল, মো. শরিফ, মোবারক, আল আমিন ও সুরুজ মিয়া। তাদের কাছে পাওয়া গেছে চারটি ক্ষুর ও আটটি সুইচ গিয়ার চাকু।

র‌্যাব-৩ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বীণা রানী দাস জানান, রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে সবজি ও ফলের দোকান, ফুটপাতের অস্থায়ী দোকান, লেগুনা স্ট্যান্ড এবং মালবাহী গাড়ি থেকে চাঁদা আদায় করে আসছিল একটি চক্র। চাঁদা না দিলে তারা প্রাণনাশের হুমকি দিত। তাদের অত্যাচারে নির্বিঘ্নে ব্যবসা করা অসম্ভব হয়ে উঠেছিল। এই পরিস্থিতিতে র‌্যাব অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা চাঁদাবাজির কথা স্বীকার করেছে। দোকান প্রতি ১০০ থেকে ৫০০ টাকা হারে চাঁদা আদায় করা হত।

এদিকে গ্রেপ্তার ছিনতাইকারীরা রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় সড়কের নিরিবিলি অংশে ওঁৎ পেতে থাকত। তারা পথচারী, রিকশা আরোহী ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার যাত্রীদের পথরোধ করে অস্ত্রের মুখে সব কিছু কেড়ে নিত বলেও জানান র‌্যাব কর্মকর্তারা।