আগামী ১৫ জুন অনুষ্ঠিতব্য কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন (কুসিক) নির্বাচনকে সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য করতে নির্বাচন কমিশনকে সরকার সব সহযোগিতা করবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। তিনি বলেছেন, ‘কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করার সক্ষমতা নবগঠিত নির্বাচন কমিশনের রয়েছে।’

শুক্রবার সন্ধ্যায় কুমিল্লা টাউন হলে কুমিল্লা জেলা প্রশাসন আয়োজিত জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২৩তম জন্মবার্ষিকী উদযাপনের তিনদিনব্যাপী অনুষ্ঠানের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘সুষ্ঠু নির্বাচন করার জন্য নির্বাচন কমিশন অঙ্গীকারাবদ্ধ।’ এর আগে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন দেশ বিদেশে অত্যন্ত প্রশংসিত হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘বর্তমান নির্বাচন কমিশন একটি সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনও নিরপেক্ষ ও সবার কাছে গ্রহণযোগ্য হবে।’

এর আগে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মো. তাজুল ইসলাম বলেন, ‘নজরুল ইসলাম ছোটবেলা থেকে সংগ্রাম করেছেন। তার প্রতিটি দিন কেটেছে সংগ্রামের মাধ্যমে। মানুষের মধ্যে যে কোনো ভেদাভেদ নেই তা তার কাব্য ও রচনায় ফুটে উঠেছে। কাজী নজরুল ইসলাম বিভিন্ন অনিয়ম, অসঙ্গতি, অন্যায় এবং উপনিবেশিকতার বিরুদ্ধে লড়াই করেছেন। সামাজিক অসাম্য, শোষণ-বঞ্চনা, ধর্মান্ধতা, বর্ণবাদ এবং নারী পুরুষের বৈষম্যের বিরুদ্ধেও ছিলেন সোচ্চার। তার জাগরণী ও উদ্দীপনামূলক সাহিত্য ও সঙ্গীত যুগে যুগে মানুষের মাঝে অনাবিল অনুপ্রেরণা যোগাবে বলে উল্লেখ করেন মন্ত্রী। আমাদের নতুন প্রজম্মের উচিত নজরুলের আর্দশ ধারণ করে তা অনুসরণ করা। জীবনে বড় হতে হলে কঠোর পরিশ্রমের বিকল্প নেই। তিনি বলেন, প্রতিটি রাজনীতিবিদদের নজরুলের আর্দশ অনুসরণ করা উচিত।

কুমিল্লার জেলা প্রশাসক মো. কামরুল হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্মারক বক্তব্য দেন বাংলাদেশের কৃষি উন্নয়ন কপোরেশনের চেয়ারম্যান এ এফ হায়াতুল্লাহ। বিশেষ অতিথি ছিলেন, কুমিল্লা পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ, বীর মুক্তিযোদ্ধো নাজমুল হাসান পাখি, জেলা পরিষদের প্রশাসক রিয়াল অ্যাডমিরাল (অব.) আবু তাহের ও কুমিলা ভিক্টোরিয়া কলেজের অধ্যক্ষ ড.আবু জাফর খান। পরে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।