বড় বোনের জানাজা নামাজে অংশগ্রহণের জন্য ঢাকার সাভার থেকে বরিশালে ছুটে আসছিলেন রমজান আলী (৪৫)। কিন্তু রোববার সকাল ১০টায় জানাজায় অংশগ্রহণ করা হলো না তার। এর আগেই ভোরে উজিরপুরে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের বামরাইল ইউনিয়নের সানুহার নামক স্থানে বাস দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন রমজান আলী।

নিহত রমজানের মেয়ে জামাই মেহেদী হাসান সজল সমকালকে এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, আমার শশুর ঢাকা সাভারে একটি গার্মেন্টসে সিকিউরিটি গার্ড হিসাবে কর্মরত ছিলেন। বাকেরগঞ্জ উপজেলার দুদলকাঠী ইউনিয়নে সুন্দরকাঠী গ্রামে অসুস্থজনিত কারণে মৃত বোনের জানাজায় অংশগ্রহণ করার জন্য আসছিলেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিহতের স্বজনদের আহাজারি

নিহত রমজান আলীর বাড়িও বাকেরগঞ্জ উপজেলার দুদলকাঠী ইউনিয়নে বলে জানান রমজানের মেয়ে জামাই মেহেদী হাসান সজল।

এদিকে বামরাইলে বাস দুর্ঘটনায় নিহত দশ জনের মধ্যে রমজান আলী ছাড়া আরও পাঁচ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন- ঝালকাঠি সদর উপজেলার নৈকাঠী গ্রামের আরাফাত হোসেন (৯), পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার নুরুল ইসলাম আকন (৩৫), একই উপজেলার রাকিব আকনের স্ত্রী আনোয়ারা বেগম (৩২), বরগুনার বেতাগী উপজেলার কাদিরাবাদ গ্রামের হালিম মিয়া (৩১), ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার আওলাদ মোল্লার ছেলে সান্টু মোল্লা (৫০)।