করোনা মহামারিকালে সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া ও শাহজাদপুরের গরু খামারিদের উৎপাদিত দুধ তাদের বাড়ি থেকে বিক্রির সুযোগ তৈরি এবং দুধ প্রক্রিয়াজাতকরণে বিশেষ অবদান রাখায় উল্লাপাড়ার সলপের ঘোল ব্যবসায়ী আব্দুল মালেক পেলেন জাতীয় পুরস্কার।

বিশ্ব দুগ্ধ দিবস উপলক্ষে বুধবার বিকেল ঢাকার খামারবাড়িতে কৃষিবিদ ইন্সটিটিউট মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে মালেকের হাতে এই পুরস্কার তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

এই মন্ত্রনালয়ের সচিব ড. মোহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহা-পরিচালক ডা. মঞ্জুর মোহাম্মদ শাহাজাদা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।

উল্লাপাড়া উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মোর্শেদ উদ্দিন আহমেদ জানান, ঘোল ব্যবসায়ী আব্দুল মালেক ২০২০-২১ সালে মহামারিকালে গরুর খামারিদের উৎপাদিত দুধ বাড়ি বাড়ি গিয়ে ন্যায্য দামে কিনে নিয়েছেন। একই সঙ্গে দুধ প্রক্রিয়াজাতকরণেও তার বিশেষ অবদান রয়েছে। আর এসব কারণে এ বছর প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর তাকে জাতীয় পুরস্কারে ভূষিত করে। মালেককে দেওয়া হয় ১ লাখ টাকার চেক, ক্রেস্ট ও সনদপত্র।

প্রসঙ্গত, আব্দুল মালেকের উৎপাদিত ঘোলের স্বাদে মানে অনন্য হওয়ায় উত্তরাঞ্চলে এর প্রচুর সুনাম রয়েছে। করোনাকালেও মালেক খামারিদের নিকট থেকে প্রতিদিন ৪/৫ হাজার লিটার দুধ কিনে ঘোল তৈরি করে বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করেছেন। আর এতে সেই দুঃসময়ে উপকৃত হয়েছেন এলাকার গরু খামারিরা। এসব কারণেই এ বছর জাতীয় পুরস্কারের জন্য সিরাজগঞ্জ জেলা প্রাণিসম্পদ বিভাগ আব্দুল মালেকের নাম প্রস্তাব করে।