সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় ১৮ শতাংশ জমির দখল নিয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নারীসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলার কয়ড়া ইউনিয়নের হোরপাড়া গ্রামের মাঠে এ ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

অহতদের মধ্যে ৩ জনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাদের সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এরা হলেন হোরপাড়া গ্রামের মো. ভাসা (৩৫) হায়দার আলী (৩৪) ও রফিকুল ইসলাম (৩০)।

এর মধ্যে দুপুরে ভাসার অবস্থা আরও অবনতি হলে তাকে ঢাকায় পাঠানো হয়। অপর আহতদের স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। 

হোরপাড়া গ্রামের লোকজন জানান, গ্রামের মাঠে ১৮ শতক ফসলি জমির মালিকানা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে গ্রামের বাচ্চু মিয়া ও শাহ আলম খাঁর মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। শুক্রবার এই জমির দখল নিয়ে উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে প্রথমে বচসা ও পরে সংঘর্ষে রূপ নেয়। পরবর্তীতে উভয়পক্ষ লাঠি সোটা নিয়ে একে অপরের উপর হামলা চালায়। এতে উভায় পক্ষের অন্তত ১৫ জন আহত হয়।

দুই গ্রুপের সংঘর্ষের খবর পেয়ে থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে এখনো সেখানে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

উল্লাপাড়া মডেল থানার উপ-পরিদর্শক সাহেব গণি ঘটনাস্থল থেকে ফিরে জানান, পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনে। কিন্তু গোলযোগকারীরা গ্রাম থেকে পালিয়ে গেছে। অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে ওই গ্রামে এখনো পুলিশ অবস্থান করছে।

তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় এক পক্ষের নেতা বাচ্চু মিয়া তার বিরোধী পক্ষ শাহ আলম খাঁর লোকজনের বিরুদ্ধে থানায় একটি অভিয়োগ দায়ের করেছেন। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

এ ব্যাপারে উল্লাপাড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির জানান, হোরপাড়া গ্রামের সংঘর্ষের ঘটনায় উভয় পক্ষ থানায় মামলার পস্তুতি নিচ্ছে। তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।