ফরিদপুরের ভাঙ্গায় সাত বছরের প্রতিবন্ধী শিশুকে ধর্ষণের ২০ দিন পার হলেও আসামি শাহআলম মাতুব্বরকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে শিশুটির পরিবার ও এলাকাবাসী। তবে পুলিশ বলছে, মামলার পর থেকে পলাতক শাহআলমকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

গত ২৬ মে উপজেলার কৈখালী গ্রামের হায়দার মাতুব্বরের ছেলে শাহআলমের বিরুদ্ধে শিশুটিকে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে। বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে শিশুটির ধর্ষণ করে শাহআলম। ওই ঘটনার পর স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের সহযোগিতায় মোটা অঙ্কের অর্থের বিনিময়ে বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা হয়। পরে শিশুটির বাবা মামলা করেন।

স্থানীয়রা জানান, শিশুটিকে ধর্ষণের পর প্রায় এক সপ্তাহ গ্রামে প্রকাশ্যেই ঘুরতে দেখা গেছে শাহআলমকে। ১ জুন ভাঙ্গা থানায় মামলা হওয়ার পর সে গা ঢাকা দেয়। এলাকার একটি মহল এখনও বিষয়টি মীমাংসার জন্য নানাভাবে চেষ্টা করছে।

শিশুটির বাবা জানান, ধর্ষণের ঘটনার এত দিন পরও শাহআলম গ্রেপ্তার না হওয়ায় সামাজিক ও মানসিক দুশ্চিন্তায় আছেন তাঁরা। শিশুর ভবিষ্যৎ নিয়েও নানা শঙ্কা তৈরি হয়েছে।

ভাঙ্গা থানার ওসি সেলিম রেজা বলেন, আমি তো আর সব মুখস্থ রাখি না। এটা তদন্তকারী কর্মকর্তা বলতে পারবেন। তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মনির হোসেন জানান, ধর্ষণের ঘটনার প্রায় ১০ দিন পর থানায় মামলা করেন শিশুটির বাবা। এর পর থেকেই আসামি পলাতক। তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।