সুনামগঞ্জের সুরমা নদীর দোয়ারাবাজার সংলগ্ন চরে ইঞ্জিন বিকল এবং প্রবল বৃষ্টি ও স্রোতে আটকা পড়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শতাধিক শিক্ষার্থীকে বহনকারী ইঞ্জিন চালিত একটি নৌকা। 

বিষয়টি সমকালকে নিশ্চিত করে জরুরি ভিত্তিতে তাদের উদ্ধারের আহ্বান জানিয়েছেন সেখানে আটকে পড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী শোয়েব আহমেদসহ একাধিক শিক্ষার্থী। 

শোয়েব আহমেদ বলেন, এখানে প্রচুর স্রোত চলছে। প্রচুর বৃষ্টিও হচ্ছে। এই রাতে সবাই জীবন নিয়ে শঙ্কায় রয়েছি। জরুরি ভিত্তিতে আমাদের উদ্ধার করার আহ্বান জানাচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, আমরা সেনাবাহিনী ও ৯৯৯ এ ফোন দিয়েও কোনো সাড়া পাচ্ছি না। ঝুঁকি নিয়ে সেনাবাহিনীও আসতে ভয় পাচ্ছে। আমরা যেখানে আছি তার চারপাশে কেউ নাই। চারদিকে শুধু পানি।

জানা যায়, গত ১৪ জুন রাতে সুনামগঞ্জের টাঙ্গুয়ার হাওরে ঘুরতে গিয়েছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২১ শিক্ষার্থী। ১৬ জুন অঞ্চলটিতে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হলে তাদেরকে উদ্ধার করে জেলা পুলিশ লাইন্সে নিয়ে আসে জেলা প্রশাসন। সেখান থেকে আজ দুপুর আড়াইটায় তাদেরকে সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তত ১০০ জনকে ইঞ্চিন চালিত নৌকায় করে সিলেটের উদ্দেশে পাঠানো হলে এমন পরিস্থিতিতে পড়েন তারা৷

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড.  এ কে এম গোলাম রাব্বানী বলেন, আমি তাদের সঙ্গে কথা বলেছি। আমি জেলা প্রশাসক, স্থানীয় প্রশাসনকে অনুরোধ করেছি দ্রুত যেন তাদের উদ্ধার করা হয় ৷ তারা অনেক করেছেন, আরেকটু সহযোগিতা যেন তারা করেন। আমার শিক্ষার্থীরা যেন নিরাপদে থাকে৷