সুনামগঞ্জে ঘুরতে গিয়ে প্রবল বন্যায় চারদিন আটকে থাকার পর অবশেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সেই ২১ শিক্ষার্থী অবশেষে ঘরে ফিরে এসেছেন। সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে তাদের ঢাকায় পৌঁছে দেওয়া হয়।

সোমবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে (টিএসসি) সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে তাদেরকে পৌঁছে দেওয়া হয়। এ সময় তাদের সহপাঠীরা তাদেরকে গ্রহণ করে নেন।

এর আগে রোববার বিকেল সাড়ে ৫টায় সেনাবাহিনীর তিন সদস্যের তত্ত্বাবধানে সংস্থার নিজস্ব মিনি বাসে (কোস্টার) তারা ঢাকার উদ্দেশে রওনা হন।

গত ১৪ জুন পরীক্ষা শেষে সুনামগঞ্জের টাঙ্গুয়ার হাওর ভ্রমণে যান ঢাবির গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ২১ ছাত্রছাত্রী। ১৬ জুন সুনামগঞ্জের বন্যা পরিস্থিতির অবনতি ঘটলে তারা কোনোমতে সুনামগঞ্জ শহরের পানসী রেস্টুরেন্টে আশ্রয় নেন। পরে সেখান থেকে সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসন তাদের উদ্ধার করে জেলা পুলিশ লাইন্সে নিয়ে যায়।

সেখান থেকে ১৭ জুন দুপুর আড়াইটার দিকে জেলা প্রশাসন ‘কপোতাক্ষ-অনির্বাণ ট্যুরিস্ট বোট’ নামের একটি নৌযানে করে তাদেরসহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শতাধিক শিক্ষার্থীকে সিলেটের উদ্দেশে পাঠায়।

রওনা হওয়ার পর রাত সাড়ে ৮টার দিকে প্রবল স্রোত এবং বৃষ্টিতে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে নৌযানটি সুনামগঞ্জের দোয়ারা বাজার সংলগ্ন সুরমার চরে আটকে যায়। পরে নৌযানটি ছাতক ফেরি ঘাটে নোঙর করতে সক্ষম হয়৷ সেখান থেকে রোববার সকালে তাদের উদ্ধার করে সেনাবাহিনী।

সেনাবাহিনীর উদ্ধার বোটে করে দুপুরের দিকে তারা সিলেট ক্যান্টনমেন্টে পৌঁছান। সেখানে অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও ছিল। তারপর সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে তারা বিকেলে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হন।