তিন বছর বয়সী নাতনি তুবাকে বাইসাইকেলে বসিয়ে পার্শ্ববর্তী হাটে মাংস কিনতে গিয়েছিলেন দাদা আব্দুল জলিল (৬০)।  কিন্তু মাংস কিনে বাড়ি ফেরা হয়নি তার। পথেই মোটরসাইকেলের ধাক্কায় নিহত হন তিনি।

বৃহস্পতিবার সকাল ৯ টায় দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার হাবড়া আম বাগান মোড়ে পার্বতীপুর-ফুলবাড়ী আঞ্চলিক সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত আব্দুল জলিলের বাড়ি উপজেলার পলাশবাড়ী ইউনিয়নের দক্ষিন দর্গাপাড়া গ্রামে।

স্থানীয়রা জানায়, সকালে নাতনিকে নিয়ে বাই সাইকেল যোগে পার্শ্ববর্তী হাবড়া হাটে মাংস কিনতে গিয়েছিলেন আব্দুল জলিল। ফেরার পথে উপজেলার হাবড়া আম বাগান মোড়ে পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি মোটর সাইকেল যানটিকে ধাক্কা দেয়। এতে দাদা-নাতনি সড়কে ছিটকে পড়লে আব্দুল জলিল গুরুতর আহত এবং মোটরসাইকেল আরোহী দম্পতি ফেরদৌস রহমান (২৪) ও দিপা মনি(১৮) গুরুতর আহত হন।  পরে আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় আব্দুল জলিলকে দিনাজপুর আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে তিনি মারা যান ।

নিহতের ছেলে কাওছার আলী জানান, নাতনির জন্য হাটে মাংস কিনতে গিয়েছিলেন তার বাবা। ফেরার পথে মোটর সাইকেলের ধাক্কায় তিনি মারা যান। তিনি আরও জানান,দুর্ঘটনার জন্য দায়ী মোটরসাইকেলটি আটক করা হয়েছে। তবে মোটর সাইকেল আরোহী দম্পতি হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে পালিয়ে গেছেন।

পার্বতীপুর মডেল থানার ওসি তদন্ত সুজয় কুমার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।