সিলেট ও সুনামগঞ্জের অধিকাংশ এলাকা তখন বন্যার পানিতে প্লাবিত। এরই মধ্যে কয়েক জায়গায় ডাকাতির ঘটনা ঘটে অভিযোগ করেন স্থানীয়রা। তবে বন্যাকবলিত এলাকায় ডাকাতি করা ডাকাতদের সতর্ক করে দিয়েছেন র‍্যাব মহাপরিচালক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন। একইসঙ্গে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন র‍্যাব প্রধান।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সুনামগঞ্জ শহরতলির সোনাপুর বাদেরটেক এলাকায় ত্রাণ বিতরণ শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় এসব কথা বলেন র‌্যাব প্রধান

ডাকাতদের সতর্ক করে তিনি বলেন, অপরাধ কর্মকাণ্ড করার আগে হিসাব করবেন। আমাদের সদস্যরা সব স্থানে নিয়োজিত আছে। কোনো অপরাধীকে ছাড় দেওয়া হবে না।

তিনি আরও জানান, এখানকার সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে র‌্যাব ছাড়াও সেনাবাহিনী, পুলিশ, নৌপুলিশ, কোস্টগার্ড, নৌবাহিনী কাজ করছে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে র‌্যাব প্রধান বলেন, দুর্যোগের পর পানিবন্দি এলাকায় কিছু কিছু ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে বলে কেউ কেউ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে জানিয়েছেন। তবে কেউ কোনো সুনির্দিষ্ট অভিযোগ জানান নি। এরপরও বিভিন্ন স্থানে টহল জোরদার করা হয়েছে।

তিনি বলেন, বন্যা শুরু হবার পর থেকে র‌্যাব সদস্যরা অসহায় মানুষের পাশে থেকে মানবিক সহায়তা দিচ্ছে। মহাদুর্যোগের সময় সুনামগঞ্জে আটকে পড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পৌঁছে দিতে সহায়তা করেছে র‌্যাব সদস্যরা।

বন্যার্তরা সকল প্রকার সহায়তা পাবেন জানিয়ে আশ্বস্ত করে র‍্যাব মহাপরিচালক বলেন, মানুষের পাশে সরকার রয়য়েছে, সরকারের বিভিন্ন সংগঠন আছে, সবাই মিলে দুর্যোগ মোকাবেলায় কাজ করা হচ্ছে। বন্যার্ত সকলেই ত্রাণসহ সকল প্রকার সহায়তা পাবেন।