এখনও ইউক্রেনের অধিকাংশ এলাকা নিয়ন্ত্রণে নিতে ইচ্ছুক রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন, এমনটাই মনে করে যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা। খবর বিবিসির।

যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের অনুমান, যুদ্ধের কারণে রাশিয়ার সেনারা এতটাই দুর্বল হয়ে পড়েছে যে, তারা শুধু আঞ্চলিক পর্যায়ে ধীর গতিতে কিছুটা সাফল্য অর্জনে সক্ষম।

ন্যাশনাল ইন্টেলিজেন্সের পরিচালক এভ্রিল হেইনস বলেন, এর অর্থ হলো— যুদ্ধ দীর্ঘদিন স্থায়ী হতে পারে।

বুধবার ন্যাটো ইউক্রেনের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দেওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থার পরিচালকের এ বক্তব্য এল।

ফেব্রুয়ারিতে হামলার শুরুর পর ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভে কাছাকাছি চলে এসেছিল রুশ সেনারা। কিন্তু কিয়েভ ও অন্য শহর নিয়ন্ত্রণে নিতে ব্যর্থ হয়ে মার্চে নিজেদের লক্ষ্য পরিবর্তন করে মস্কো। এর পর দোনবাসকে গুরুত্ব দেওয়ার কথা জানানো হয়।

এভ্রিল হেইনস

হেইনস বলেন, সংঘাতের শুরুতে পুতিনের যে লক্ষ্য ছিল, এখনও তা আছে আগের মতোই।

পুতিনের লক্ষ্য সম্পর্কে বলতে গিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ এ গোয়েন্দা কর্মকর্তা বলেন, পুতিনের লক্ষ্য— ইউক্রেনের অধিকাংশ এলাকার নিয়ন্ত্রণ নেওয়া।

তবে এ গোয়েন্দা কর্মকর্তার অনুমান, রাশিয়ার পক্ষে দ্রুত এ লক্ষ্য অর্জন করা সম্ভব বলে মনে হয় না।

এখন দোনবাসের শিল্পাঞ্চল দখলে নজর রাশিয়ার। দেশটির দাবি, ইউক্রেন সেখানে রুশভাষীদের বিরুদ্ধে গণহত্যা চালাচ্ছে। মস্কো এ অঞ্চলকে গুরুত্ব দেওয়ার পর থেকে বেশ সাফল্য পেয়েছে বলা যায়। সম্প্রতি গুরুত্বপূর্ণ সেভেরোদোনেৎস্ক এলাকা দখলে নিয়েছে রুশ সেনারা। তবে ইউক্রেনীয় সোনাদের প্রতিরোধের মুখে তাদের অগ্রগামীতা অত্যন্ত ধীর।