টানা বর্ষণ ও ভারতের উজান থেকে নেমে আসা পানির তোড়ে লালমনিরহাটে আবারও তিস্তা ও ধরলার পানি বাড়তে শুরু করেছে। বৃহস্পতিবার সকাল ৬টার দিকে লালমনিরহাটের শিমুলবাড়ি পয়েন্টে ধরলার পানি বিপৎসীমার ১৪ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল।

পরে সকাল ৯টায় তা কমে বিপৎসীমার ৯ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। বুধবার তিস্তার পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হলেও আজ বৃহস্পতিবার তা কমে নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার গভীর রাত থেকে তিস্তা ও ধরলা নদীর পানি বাড়তে থাকে। বিশেষ করে ধরলার পানি অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্বিতে নদীতীরবর্তী সদর উপজেলার মোগলহাট ও কুলাঘাট ইউনিয়নের কিছু চরাঞ্চলে পানি ঢুকে পড়েছে।

পানিবন্দি হয়ে পড়েছে প্রায় চার হাজার পরিবার। ভারতে উৎপত্তি ধরলা নদী মোগলহাট সীমান্ত হয়ে দেশে প্রবেশ করেছে। তাই ধরলার প্রথম শিকার হয় মোগলহাট ইউনিয়ন।

ওই ইউনিয়নের চর ফলিমারী এলাকার পানিবন্দি মানুষ গবাদিপশু নিয়ে মুজিব কেল্লায় আশ্রয় নিয়েছেন। ভাঙনের আশঙ্কায় বাড়িঘর সরিয়ে  অনেকেই উঁচু স্থানে যাওয়ার চেষ্টা করছেন। এদিকে কুলাঘাট ইউনিয়নের প্রায় ১ হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক আবু জাফর জানান, পর্যাপ্ত ত্রাণ রয়েছে। ভয়ের কিছু নেই। পূর্বের বরাদ্দকৃত ত্রাণ বিতরণ চলছে। নতুন করে তালিকা প্রনয়ণ করা হলে আবার ত্রাণ দেওয়া হবে।