৬ মাস আগে সিরাজগঞ্জ জেলা শহরের টুকু-ব্রিজের পাশে আওয়ামী লীগ-বিএনপির সংঘর্ষে অস্ত্র প্রদর্শনকারী ‘যুবলীগকর্মী’ বায়েজিদ পিস্তলসহ গ্রেপ্তার হয়েছেন। বুধবার রাতে শিয়ালকোল বাজারের চায়ের দোকান থেকে গ্রেপ্তারের বৃহস্পতিবার আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। সিরাজগঞ্জ কোর্ট পরিদর্শক মোস্তফা কামাল বায়োজিদকে জেলা কারাগারের প্রেরণের বিষয়টি মোবাইলে নিশ্চিত করেছেন।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিরাজগঞ্জ ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক খোকন চন্দ্র সরকার ও উপ-পরিদর্শক মেহেদী হাসান সঙ্গীয় ফোর্স বায়োজিদকে গ্রেপ্তার করেন। বুধবার রাতে গ্রেপ্তারের সময় পিস্তল উদ্ধারের ঘটনায় বায়োজিদের বিরুদ্ধে সদর থানায় অস্ত্র আইনে মামলা হয়েছে।

এছাড়া, হাতুড়ি দিয়ে পলাশকে মারধরের পৃথক ঘটনায় সদর থানায় তার বিরুদ্ধে আরেকটি মামলা প্রক্রিয়ায় রয়েছে। সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন পলাশ চার দিন আগে স্লুইসগেটে বায়োজিদের হাতুড়ির আঘাতে গুরতর আহত হন। সদর থানার ওসি নজরুল ইসলাম অস্ত্র আইনে মামলার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

সিরাজগঞ্জ ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক খোকন চন্দ্র সরকার বৃহস্পতিবার জানান, গ্রেপ্তারের পর সে নিজেকে যুবলীগকর্মী হিসেবেই দাবি করেছেন। বায়োজিদ মাদকসেবী ও চিহ্নিত সন্ত্রাসী। তার বিরুদ্ধে এর আগে থেকেই আরো পাঁচটি মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে। এছাড়া, বুধবার রাতে তার বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে নতুন মামলা হয়েছে।

এদিকে, সম্প্রতি বিলুপ্তি হওয়া সিরাজগঞ্জ জেলা যুবলীগের কমিটির সভাপতি রাশেদ ইউসুফ জুয়েল বলেন, ‘সেদিন সংঘর্ষে অস্ত্র প্রদর্শনকারী বায়োজিদ যুবলীগের কর্মী নন।’