চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে লিফটে উঠাকে কেন্দ্র করে রোগীর স্বজনের সঙ্গে চিকিৎসক ও লিফটম্যানের  হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় রিয়াজুল ইসলাম (৩৬) নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ। রোববার চমেক হাসপাতালের ৬ নম্বর লিফটের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

আটক রিয়াজুল ইসলাম নোয়াখালী জেলার চাটখিলের কড়িহাটি এলাকার মৃত গোলাম মোস্তফার ছেলে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, মাতৃত্বকালীন সমস্যার কারণে কয়েকদিন ধরে চমেক হাসপাতালের ছয় তলার ৩৩ নম্বর গাইনী ওয়ার্ডে ভর্তি আছেন রিয়াজুলের বোন। রোববার দুপুরের দিকে হাসপাতালের নিচতলা থেকে সেই ওয়ার্ডে যাওয়ার জন্য রিয়াজুল হাসপাতালের ৬ নম্বর লিফটে উঠলে সেখানে চিকিৎসকরা থাকায় লিফটম্যান তাকে তুলতে অপরাগতা জানায়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে রিয়াজুল। ওই সময় লিফটম্যানের সঙ্গে তর্কে জড়ান তিনি। একপর্যায়ে ওই লিফটে থাকা চিকিৎসক মিজানুর রহমানের সঙ্গেও হাতাহাতি ও মারামারিতে লিপ্ত হয় রিয়াজুল। খবর পেয়ে চমেক হাসপাতালের স্টাফরা রিয়াজুলকে আটক করে হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়িতে খবর দিলে পুলিশ এসে তাকে হেফাজতে নেয়।

এই ঘটনায় পরবর্তীতে চমেক হাসপাতালের সহকারী পরিচালক রাজিব পালিত বাদী হয়ে নগরের পাঁচলাইশ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

পাঁচলাইশ থানার ওসি (তদন্ত) সাদেকুর রহমান বলেন, চমেক হাসপাতালের লিফটে এক চিকিৎসক ও লিফটম্যানের সঙ্গে রোগীর স্বজনের হাতাহাতি ও মারামারির ঘটনা ঘটেছে। অভিযোগের ভিত্তিতে এ ঘটনায় রিয়াজুল ইসলাম নামে রোগীর এক স্বজনকে আটক করা হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।