ফরিদপুরের বোয়ালমারী ও সদরপুরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় মা-মেয়ে ও নির্মাণ শ্রমিক নিহত এবং আহত হয়েছেন আরও তিন জন।

রোববার দুপুর ২টার দিকে বোয়ালমারী উপজেলার মাঝকান্দি-বোয়ালমারী-ভাটিয়াপাড়া আঞ্চলিক সড়কের কলিমাঝি এলাকায় ট্রাকচাপায় ঘটনাস্থলেই ভ্যানযাত্রী মা ও মেয়ে নিহত এবং ভ্যানচালক আহত হন।

নিহত মা ও মেয়ে হলেন- স্থানীয় রূপাপাত ইউনিয়নের টোংরাইল গ্রামের প্রবীর বিশ্বাসের স্ত্রী সুপর্ণা বিশ্বাস (৩২) ও মেয়ে প্রত্যাশা বিশ্বাস (৭)। আহত ভ্যান চালকের নাম-পরিচয় জানা যায়নি। 

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, দুপুরে সুপর্ণা ও তার মেয়ে সহস্রাইল বাজারে কেনাকাটা করতে আসেন। সেখান থেকে আঞ্চলিক সড়ক দিয়ে ভ্যানে বাড়ি ফিরছিলেন। পথে কলিমাঝি শামসুল আলমের ইটভাটার সামনে পৌঁছালে ঢাকাগামী গরুবাহী একটি ট্রাক ভ্যানটিকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে ভ্যানযাত্রী মা-মেয়ে সড়কে ছিটকে পড়ে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। আর ভ্যানচালক ট্রাকের ধাক্কায় সড়কে ছিটকে পড়ে আহত হন। 

নিহত মা-মেয়ের মরদেহ উদ্ধারকারী বোয়ালমারী থানার উপপরিদর্শক উত্তম কুমার সেন জানান, ট্রাকের চাপায় নিহত দুই জনের মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালে সুরতহালের কাজ চলছে। পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। ট্রাকটি খুঁজতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

অপরদিকে সদরপুরে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় সজিব শেখ (১৭) নামের এক নির্মাণ শ্রমিক নিহত হয়েছেন। এ সময় তার সঙ্গে থাকা দুই আরোহী আহত হন। শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে সদরপুর-ফরিদপুর সড়কের উপজেলার সদর ইউনিয়নের শ্যামপুর তেলের পাম্পের সামনে এই দুর্ঘটনা ঘটে। রোববার সকালে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা নেওয়ার পথে মারা যান সজিব। তিনি কৃষ্ণপুর ইউনিয়নের কৃষ্ণপুর গ্রামের আলেম শেখের ছেলে।

জানা যায়, উপজেলার আটরশি গ্রাম থেকে কাজ শেষে মোটরসাইকেলে ফেরার পথে শ্যামপুর তেলের পাম্প এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা অপর এক মোটরসাইকেলের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে দুই মোটরসাইকেলে থাকা তিনজনই গুরুতর আহত হন।  

স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে সদরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে সজিবের অবস্থার অবনতি হলে রাতেই ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে রোববার সকালে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর থেকে ঢাকা মেডিক্যালে নেওয়ার সময় পথে তিনি মারা যান।

সদরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুব্রত গোলদার জানান, দুটি মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে সজিব নামে একজন নির্মাণ শ্রমিক নিহত হয়েছেন। নাম্বারবিহীন দুটি মোটরসাইকেল আটক করে থানায় রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় এখনও মামলা হয়নি।