প্রতারণা ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে ইভ্যালির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মোহাম্মদ রাসেল ও তার স্ত্রী প্রতিষ্ঠানটির সাবেক চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিনের বিরুদ্ধে ঢাকার আদালতে আরও একটি মামলা হয়েছে। সাভার হেমায়েতপুরের বাসিন্দা ইভ্যালি গ্রাহক জান্নাতুল ফেরদৌস রোববার এ মামলা দায়ের করেন।

ঢাকা মহানগর হাকিম দেবদাস চন্দ্র অধিকারী বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে ধানমন্ডি থানাকে মামলাটি এজাহার হিসেবে গ্রহণের নির্দেশ দেন।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ইভ্যালির চমকপ্রদ বিজ্ঞাপনে আকৃষ্ট হয়ে জান্নাতুল ফেরদৌস ২৬ লাখ ৭৭ হাজার ৫০০ টাকার বিভিন্ন পণ্য অর্ডার করেন। পরে ওই টাকা ইভ্যালির অ্যাকাউন্টে পেমেন্ট করেন। ওই সব পণ্য বাদীকে সরবরাহ করতে ব্যর্থ হয় ইভ্যালি। পণ্য সরবরাহ করতে না পারায় ইভ্যালি গত বছর সেপ্টেম্বর মাসে পাঁচটি চেকের মাধ্যমে বাদীকে ওই টাকা প্রদান করে।

পরে একই বছরের ২২ সেপ্টেম্বর ইউনাইটেড ব্যাংকের হেমায়েতপুরস্থ শাখায় ওই চেক উপস্থাপন করলে চারটি এবং ১০ নভেম্বর আরেকটি চেক ডিজঅনার হয়। জান্নাতুল ফেরদৌস বিষয়টি ইভ্যালিকে জানায়। 

সর্বশেষ গত ১৯ জুন বাদী ইভ্যালির ধানমন্ডি অফিসে গেলে প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীরা জানায় তাকে কোনো টাকা প্রদান করা হবে না। এ নিয়ে বাড়াবাড়ি করলে বাদীকে প্রাণনাশের হুমকিও দেওয়া হয়। 

প্রসঙ্গত, রাসেল ও শামীমার বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ ও প্রতারণার অভিযোগে বর্তমানে ৬টি মামলা রয়েছে। আট মাস কারাভোগের পর রাসেল ও শামীমা বর্তমানে জামিনে আছেন।