ঢাকার কমলাপুর রেলস্টেশনে আজও (সোমবার) ঈদের অগ্রিম টিকিটপ্রত্যাশীদের ভিড় রয়েছে। অগ্রিম টিকিট বিক্রির আজ চতুর্থ দিন। আজ সকালে টিকিটপ্রত্যাশীদের লম্বা লাইন দেখা গেছে। আজ দেওয়া হচ্ছে ৮ জুলাইয়ের টিকিট। আগামীকাল ৫ জুলাই অগ্রীম টিকিট বিক্রি শেষ হবে।

আজ যারা টিকিট পেয়েছেন তাদের অনেককেই অপেক্ষা করতে হয়েছে ৪৮ ঘণ্টা সময়। ট্রেনের টিকিটের জন্য কেন এত কষ্ট করছেন- জানতে চাইলে মো. জিন্নাতের জবাব, বাসে দুর্ভোগ আরও বেশি। সারাপথ বাচ্চা কাঁদে। তাই বাধ্য হয়েই ট্রেনের টিকিটের জন্য দিনরাত বসে আছেন কমলাপুরে। তার সিরিয়াল ৪৩। টিকিট পাবেন কিনা নিশ্চিত নন। 

 এদিকে, কমলাপুর রেলস্টেশনে ট্রেনের টিকিট কাটতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন নারী ও শারীরিক প্রতিবন্ধীরা। সেখানে একটি মাত্র কাউন্টার থাকা। গত শুক্রবার ঈদে ট্রেনের টিকিট বিক্রি শুরু হয়। আজ সোমবার চতুর্থ দিনেও নারী ও শারীরিক প্রতিবন্ধীদের টিকিটের জন্য কাউন্টার বাড়ানো হয়নি। স্টেশনে পুরুষদের জন্য নয়টি কাউন্টার রয়েছে।

একটি কাউন্টার হওয়ায় নারীদের ২০ থেকে ৩০ ঘণ্টা লাইনে অপেক্ষা করে টিকিট পেতে হচ্ছে। কারও কারও এর চেয়ে বেশি সময় লাগছে। তাঁদের রাত কাটাতে হচ্ছে রেলস্টেশনেই। নারীদের কাউন্টার থেকে শারীরিক প্রতিবন্ধীদেরও টিকিট দেওয়া হচ্ছে। চারজন নারীর পর একজন শারীরিক প্রতিবন্ধীকে টিকিট দেওয়া হয়। এ কারণে তাঁদেরও দীর্ঘ সময় লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হচ্ছে।